সোমবার, ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৪ঠা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

হজ ফ্লাইট বাতিল না হওয়ার আশ্বাস, তবুও বাতিল

AmaderBrahmanbaria.COM
আগস্ট ১২, ২০১৭
news-image

---

হজযাত্রার সংকট কাটিয়ে উঠতে এবার অন্য এয়ার লাইন্সে সাধারণ ফ্লাইটে যাত্রী পরিবহনের দাবি জানিয়েছে হজ এজেন্সি এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, ‘হাব’। পাশাপাশি সৌদি সরকারে কাছ থেকে আরো ২৫টি স্লট নেয়ার তাগিদ জানিয়েছে সংগঠনটি। এদিকে ভিসা দেয়ার গতি এসেছে জানিয়ে আর কোনো ফ্লাইট বাতিল হবে না বলে আশ্বস্ত করেছে হজ অফিস। তবে আজ শনিবারও হজ ফ্লাইট বাতিল হয়েছে।

যাত্রী সংকটে হজ ফ্লাইট বাতিল এখন নিয়মিত ঘটনা। আশকোনায় ভিসার অপেক্ষায় রয়েছে অন্তত ৩৫ হাজার যাত্রী। হজ ক্যাম্প পরিদর্শন করে হাব মহাসচিব শাহাদাত হোসেন তসলিম জানিয়েছেন, এ সংকটের সমাধান খুঁজতে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছেন তারা। তুলে ধরেছেন কিছু দাবি দাওয়া।

হাব মহাসচিব বলেন, বিমানে হয়ত সমস্যায় পড়বে, ওনাদের এয়ার ট্র্যাক বা অন্যান্য সুবিধা নাও থাকতে পারে। প্রয়োজনে একটি, দুটি আন্তর্জাতিক রুট কয়েক দিনের জন্য বন্ধ করে দেয়ার জন্য। স্লটের সর্বোচ্চ ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনে অন্য কোনো এয়ার লাইন্সের সাথে রুট শেয়ারিংয়ের মাধ্যমেও ফ্লাইট পরিচালনা করে হাজী সাহেবানদের নিয়ে যাওয়ার জন্য ।

হজযাত্রী কল্যাণ পরিষদ বলছে, পরিস্থিতি বিবেচনায় শুধু বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ার লাইন্সের উপর নির্ভর করলে চলবে না। বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে মন্ত্রণালয়কে।

হজযাত্রী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল নাসের বলেন, সমাধানের উপায় এখন তৃতীয় মাধ্যম ছাড়া কোন বিকল্প নেই। কাতার, কুয়েত, দুবাই এ সমস্ত এয়ার লাইন্সকে বেসামরিক বিমান পরিবহনকে অনুরোধ জানাতে হবে আমাদের হাজীদের নিয়ে সমস্যার সমাধান করতে।

এ পর্যন্ত ৯২ হাজার যাত্রী ভিসা পেয়েছে। সৌদি আরব পৌঁছেছে ৫৫ হাজার। এর মধ্যে যে বিমানের অতিরিক্ত স্লট মিলেছে তার পুরোটা ব্যবহার নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। তবে হজ পরিচালকের দাবি আর কোনো ফ্লাইট বাতিল হবে না।

হজ অফিস, পরিচালক সাইফুল ইসলাম বলেন, ফ্লাইট বাতিল হয়েছে এগুলো আপনারা সবাই জানেন, ফ্লাইটে যে সমস্ত হজযাত্রী ছিলেন তাদেরকে কিভাবে নতুন ভাবে হজযাত্রা নিয়ে যাওয়া যায়। এটি আমাদের সবচেয়ে বড় ভাবনার বিষয়। ১৪টি যে স্লট পেয়েছে সেটি আপনারা আগে শুনেছেন। এই ১৪ টি স্লটই কিভাবে সর্বোচ্চ ব্যবহার করা যায়,একটি স্লটেও যেন ঘাটতি না থাকে এর রাস্তা বের করতে হবে, এর কোনো বিকল্প নাই।

পাশাপাশি ভিসা দেয়ার কাজ আগের চেয়েও দ্রুতগতিতে হচ্ছে বলে জানাচ্ছে হজ অফিস।