মঙ্গলবার, ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৫ই পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

নিরব জামায়াতে নতুন চাপ

AmaderBrahmanbaria.COM
অক্টোবর ১১, ২০১৭
news-image

---

নিজস্ব প্রতিবেদক :আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামীর নেতাকর্মীদের চাপে রাখা হচ্ছিল। এমন অভিযোগ করে আসছিল দলটি। তবে গত কয়েক মাস দলটির নেতাকর্মীদের কাউকে গ্রেফতার না করায় নিরবেই সাংগঠনিক কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল তারা। এক পর্যায়ে বিষয়টি সরকারের টনক নড়েছে। তাই সম্প্রতি ফের জামায়াত নেতাদের গ্রেফতার করতে শুরু করেছে পুলিশ। ইতোমধ্যে দলটির আমির, সেক্রেটারীসহ শীর্ষ ২১ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাই দলটি নতুন করে আবার ধাক্কা খেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, গত সোমবার রাতে রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে জামায়াতের আমির মাওলনা মকবুল আহমেদ ও সেক্রেটারী ডা. শফিকুর রহমানসহ শীর্ষ আট নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর পর দিন মঙ্গলবার রাজধানীর কদমতলী থানায় তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে দুই মামলা দায়ের করা হয়। মামলা দুটি দায়ের পর তাদের বিরুদ্ধে ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। পরে আদালত ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এদিকে, এমনতাবস্থায় জামায়াত ভারপ্রাপ্ত আমির ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে দুই সিনিয়র নেতাকে। এরপর তারা হরতালের মত কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার দলটি সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করবে। মঙ্গলবার রাতে দলটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এমন তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, দলটির শীর্ষ নেতাদের হঠাৎ করে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে? এমন প্রশ্ন অনেকেই। তবে দলটি দাবি করেছে আগামী নির্বাচনে তাদের নেতাদের অংশ গ্রহণ করতে না দেয়া এবং দলটিকে নেতৃত্ব শূণ্য করতে সরকার এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তবে আওয়ামী লীগ নেতারা তা অস্বীকার করেছেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্যাহ গণমাধ্যমে বলেন, গণমাধ্যমে পুলিশের যে বক্তব্য এসেছে, তাতে জামায়াতের নেতারা ষড়যন্ত্রমূলক কার্যক্রমে ব্যস্ত ছিলেন। সে কারণে তাঁদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘এখনো নির্বাচনের তারিখই হয়নি। তা ছাড়া আমরা আগামী নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ আশা করি।’

সরকারি দল ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সূত্রগুলো বলছে, জামায়াত যে হঠাৎ সক্রিয় হয়েছে, বিষয়টি কিছুদিন আগে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো টের পায়। এ কারণে সপ্তাহ দুয়েক আগে থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ অভিযান শুরু করে এবং জামায়াত ও শিবিরের বেশ কজন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করে।