মঙ্গলবার, ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৫ই পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মেসিকে জড়িয়ে ধরে চুমু অতঃপর…

AmaderBrahmanbaria.COM
নভেম্বর ২৩, ২০১৭
news-image

---

স্পোর্টস ডেস্ক : বার্সেলোনার প্রাণভোমরা লিওনেল মেসিকে জড়িয়ে ধরে অলিম্পিয়াকোস সমর্থকদের সেই সেলফি-চুমু কাণ্ডের কথা মনে আছে নিশ্চয়। ম্যাচ চলাকালে অবাধে মাঠে ঢুকে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের সঙ্গে নিজেদের সমর্থকদের সেই কাণ্ডের জন্য চড়া মূল্যই দিতে হচ্ছে অলিম্পিয়াকোসকে। খেলোয়াড়দের ‘নিরাপত্তা নিয়ম’ ভঙ্গ করার দায়ে গ্রিস ক্লাবকে ৬০ হাজার পাউন্ড বা ৬৭ হাজার ৫৩৬ ইউরো জরিমানা করেছে উয়েফা।

ঘটনাটা গত ৩১ অক্টোবরের। সেদিন অলিম্পিয়াকোসের সঙ্গে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ খেলতে নেমেছিল বার্সেলোনা। ম্যাচটাতে জয় পায়নি কোনো দলই। নিজেদের মাঠে অলিম্পিয়াকোস গোলশূন্য রুখে দিয়েছিল বার্সেলোনাকে।

গোলশূন্য ওই ড্র ম্যাচের সবচেয়ে চুম্বুক অংশ ছিল অলিম্পিয়াকোসের দুই সমর্থকদের অবাধে মাঠে ঢুকে মেসিকে জড়িয়ে ধরা, সেলফি তোলা, চুমু খাওয়ার ঘটনা।

ম্যাচের প্রথমার্ধে একটা কর্নার পায় বার্সেলোনা। কর্নার নিতে যান মেসি। কিন্তু শট নেওয়ার আগেই তাকে মুখোমুখি হতে হয় বিব্রত এক পরিস্থিতির। শট নিতে যাবেন, ঠিক এমন সময়ই পেছন থেকে এসে তাকে জড়িয়ে ধরেন এক দর্শক। পরে মেসিকে জড়িয়ে ধরে তুলেন সেলফি। আর এই ঘটনাটাও ঘরে মাঠে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তাকর্মীদের চোখের সামনে।

তারা ওই সমর্থককে কোনো বাধাই দেননি। অবাধে মাঠে ঢুকে মেসির সঙ্গে সেলফি তুলে বিনা বাধাতেই আবার ফিরে যান গ্যালারিতে। যেন ম্যাচ চলাকালে মাঠে ঢুকে খেলোয়াড়দের সঙ্গে দর্শকদের আলিঙ্গন-মোলাকাত করা, সেলফি তোলা স্বাভাবিক ঘটনা! নিরাপত্তা কর্মীদের এমন নির্লিপ্ততায় উদ্বুদ্ধ হয়েই কিনা, ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধেও আবার মাঠে ঢুকে পড়েন আরেকজন দর্শক।

তিনি সরাসরি মাঠের অনৈকটা ভেতরেই প্রবেশ করেন। খুঁজে খুঁজে মেসির কাছে গিয়ে তাকে জড়িয়ে ধরেন। এরপর মেসির শ্মশ্রুমন্ডিত গালে এঁটে দেন চুমু। এবারও নিরাপত্তাকর্মীরা নির্লিপ্ত। বাধা দেওয়া দূরের কথা, ওই দর্শকদের ধারের কাছেও যাননি তারা।

ভদ্র গোছের ওই দুই দর্শক, অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটাননি বটে। শুধু বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকার প্রতি নিজেদের অগাধ ভালোবাসার প্রমাণ দিয়েই চলে যান। কিন্তু ‘ভালোবাসা নিদর্শনের’ ওই দৃশ্যটা ফুটবলবোদ্ধাদের খুশির চেয়ে শঙ্কিতই করে বেশি।

উয়েফার স্পষ্ট নিয়ম, ম্যাচ চলাকালে দর্শকরা মাঠে ঢুকতে পারবে না। দর্শকদের কবল থেকে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যই মাঠে নেওয়া হয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অথচ সেই নিরাপত্তাকর্মীরা কিনা কোনো বাধায় দেয়নি। তাদের চোখের সামনেই এই গ্রহের সেরা খেলোয়াড়টির সঙ্গে নিজেদের সখের সেলফি-চুমু কাণ্ড ঘটিয়ে বসেন দর্শকরা।

ম্যাচের পরপরই অলিম্পিয়াকোসের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন ফুটবলবোদ্ধারা। যদি অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটত! ফুটবলবোদ্ধাদের এই শঙ্কার পরিপ্রেক্ষিতেই ঘটনা তদন্তের জন্য তদন্ত কমিঠি গঠন করে উয়েফা। সেই তদন্ত কঠিটির সুপারিশের ভিত্তিতেই গ্রিক ক্লাবটিতে জমিরানা করল উয়েফা।

শুধু ক্লাবকেই নয়, জরিমানা করা হয়েছে ওই দুই দর্শককেও। তবে তাদের জরিমানার অঙ্কটা প্রকাশ করা হয়নি। অঙ্কটা যাই হোক, শাস্তির মাধ্যমে অনুকরণীয় দৃষ্টান্তই স্থাপন করল উয়েফা। আর কোনো দর্শক নিশ্চয় ম্যাচ চলাকালে নিজেদের সেলফি-সখ মেটানোর জন্য অবাধে মাঠে ঢুকে পড়ার সাহস পাবে না!

এ জাতীয় আরও খবর