মঙ্গলবার, ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৫ই পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

হাথুরুকে চেয়ে বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কার চিঠি

AmaderBrahmanbaria.COM
নভেম্বর ২৩, ২০১৭
news-image

---

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০১৯ সাল পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও বাংলাদেশের কোচের পদে আর চাকরি না করারই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহ। ফলে চুক্তি ভঙ্গ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও–বা (বিসিবি) ব্যাপারটি এত সহজে মেনে নেবে কেন?

তাই সব বিষয় মাথায় রেখেই বুধবার বিসিবি সভাপতিকে চিঠি লিখেছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) সভাপতি থিলাঙ্গা সুমাথিপালা।

হাথুরুসিংহেকে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের কোচ পদপ্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকারও করা হয়েছে সেই চিঠিতে। তবে এসএলসি জানিয়েছে, হাথুরুকে কোচ হিসেবে বিবেচনা করা হবে বাংলাদেশের সঙ্গে তার চুক্তির সবকিছু চুকেবুকে গেলেই।

সুমাথিপালা বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানকে লেখা সেই চিঠিতে চুক্তির বিষয়টা দ্রুত সুরহা করতে অনুরোধ করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, নিজেদের লক্ষ্য পূরণের জন্যই এই মুহূর্তে নাকি হাথুরুকে বড্ড প্রয়োজন শ্রীলঙ্কার, ‘হাথুরু যে আমাদের জন্য আদর্শ, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহই নেই। আমাদের স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি লক্ষ্যগুলো পূরণ করতে তাকেই প্রয়োজন।’

বার্তা সংস্থা এএফপিকে সুমাথিপালা এই চিঠির বিষয়টি জানিয়েছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে বিসিবি সভাপতিকে চিঠি লিখেছি। সে চিঠিতে হাথুরুর ব্যাপারে আমাদের ইচ্ছার কথা তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

অক্টোবরের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এই লঙ্কান কোচ আর ঢাকায় পা রাখেননি। এ মাসের শুরুতেই জানা যায়, বাংলাদেশের কোচ হিসেবে আর কাজ চালিয়ে যেতে আগ্রহী নন তিনি।

হাথুরুসিংহে ২০১৪ সালে কোচ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকে সাফল্যের পথেই হেঁটেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। মোটামুটি দীর্ঘ সেই সাফল্যের ফিরিস্তি। আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে ওপরের দিকে উঠে আসা, অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা, টেস্টে শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের মতো দলকে হারানোসহ সর্বশেষ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালে খেলা—বাংলাদেশকে অন্য উচ্চতাতেই নিয়ে গেছেন হাথুরু।

২০১৫ সালে তিন মাসের ব্যবধানে পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজ জয়ের নেপথ্য নায়ককে এখন তার নিজের দেশ পেতে চাইছে খুব করেই। অথচ শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করার সময়ই চাকরি হারিয়েছিলেন ২৬টি টেস্ট ও ৩৫টি ওয়ানডে খেলা এই ক্রিকেটার।