মঙ্গলবার, ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৫ই পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) শনিবার

AmaderBrahmanbaria.COM
ডিসেম্বর ১, ২০১৭
news-image

---

শনিবার ১২ রবিউল আউয়াল পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। এক হাজার ৪৪৭ বছর আগে এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন শান্তির ধর্ম ইসলামের প্রচারক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানব, সাইয়েদুল মুরসালিন হযরত মুহাম্মদ (সা.)। এর ৬৩ বছর পর একই তারিখে ইন্তেকাল করেন রাসূল (সা.)। বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জন্য দিনটি একই সঙ্গে আনন্দ ও বেদনার। ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) বা সীরাতুন্নবী (সা.) হিসেবে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করেন ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা।

বিশ্ব যখন পৌত্তলিকতার অন্ধকারে ডুবে ছিল, তখন মহান আল্লাহতায়ালা মানবজাতিকে পথ দেখাতে মহানবীকে (সা.) পৃথিবীতে প্রেরণ করেন। মক্কার কুরাইশ গোত্রের সাধারণ পরিবারে জন্ম নেন তিনি। ৪০ বছর বয়সে নবুয়ত লাভ করেন। কুসংস্কার, গোড়ামি, অন্যায়, অবিচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভাঙতে রাব্বুল আলামিনের পক্ষ থেকে মুক্তির বার্তা আনেন মানবজাতির জন্য। এরপর মহানবী (সা.) দীর্ঘ ২৩ বছর এই বার্তা প্রচার করে ৬৩ বছর বয়সে ইহলোক ত্যাগ করেন।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে সারাবিশ্বের মুসলমানদের মতো বাংলাদেশেও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা পারিবারিক ও সামাজিকভাবে নানা অনুষ্ঠান পালন করে থাকেন। এর মধ্যে রয়েছে নফল নামাজ আদায়, কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা দেশবাসীসহ মুসলিম উম্মাহর সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান। একই সঙ্গে মহানবীর (সা.) জীবনাদর্শ অনুসরণ করে ভ্রাতৃত্ববোধ ও মানবকল্যাণে ব্রতী হতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে শনিবার সরকারি ছুটির দিন। বন্ধ থাকবে সংবাদপত্রও। দেশের সব সরকারি-বেসরকারি টেলিভিশন ও রেডিও চ্যানেল দিনটিতে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর (সা.) গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে। এ উপলক্ষে সংবাদপত্রগুলো বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করেছে। ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন পক্ষকালব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।

যথাযথভাবে দিবসটি পালনের লক্ষ্যে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। জাতীয় পতাকা ও ‘কালিমা তাইয়েবা’ লিখিত ব্যানার ঢাকা মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ ট্রাফিক আইল্যান্ড ও লাইটপোস্টে প্রদর্শন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। শিশু একাডেমি শিশুদের জন্য বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। দেশের সব হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, বৃদ্ধনিবাস ও মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিশনগুলো যথাযথভাবে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালন করবে।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালনে বিভিন্ন ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল এবং সামাজিক, ধর্মীয় সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল ইত্যাদি। সারাদেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ব্যবস্থাও করা হয়েছে।