সোমবার, ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৪ঠা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

কুরআন তেলোয়াতেই প্রশান্তি আসে হৃদয়ে

AmaderBrahmanbaria.COM
ডিসেম্বর ৪, ২০১৭
news-image

---

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কুরআন অবতির্ণ করেছেন এই জন্যই যে, তাঁর বান্দারা নিয়মিত কুরআন তেলাওয়াত করবে। কুরআনের নির্দেশনা অনুযায়ী আমল করবে। কুরআনে উল্লেখিত ঐতিহাসিক ঘটনাসমূহ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করবে এবং প্রত্যেক ব্যক্তিই কুরআন থেকে ইহকাল ও পরকাল সম্পর্কিত বিষয়াবলীর সঠিক দিক-নির্দেশনা গ্রহণ করবে।

আল্লাত তায়ালা ইরশাদ করেন:- (কোরআন) সে-ই কিতাব, যাতে কোন সন্দেহ নেই, এতে রয়েছে মুত্তাকীদের জন্য পথের দিশা (সূরা বাকারা-২)
হে মানুষ তোমাদের জন্য এসেছে উপদেশ তোমাদের রবের পক্ষ থেকে এবং অন্তরে যা আছে তার নিরাময় আর মুমিনদের জন্য হেদায়াত ও রহমত। বলুন,এ কোরআন আল্লাহর অনুগ্রহ ও তাঁর রহমত, অতএব তারা সবাই আনন্দিত হোক। তারা যা কিছু জমা করে এই কোরআন তাঁর চেয়ে অনেক উত্তম (সূরা ইউনুছ-৫৭,৫৮)।
রমজান মাসেই কোরআন নাজিল করা হয়েছে, যা মানুষের জন্য হেদায়াত, সৎপথের স্পষ্ট নিদর্শন এবং সত্য ও মিথ্যার পার্থক্যকারী (সূরা বাকারা-১৮৫)।
আপনার প্রতি নাজিলকৃত কোরআন পড়ুন এবং নামাজ কায়েম করুন (সূরা আনকাবুত-৪৫)
আমি যাদের কিতাব দিয়েছি, তারা তা যথোপযুক্তভাবে পড়ে, তারা এর প্রতি নিষ্ঠা সহকারে ঈমান আনে (সূরা বাকারা-১২১)ধীরে ধীরে সহীহ-শুদ্ধভাবে কোরআন পড়-তেলাওয়াত কর (সূরা মুযামমিল-৪)
তাদের মধ্যে এমন কিছু নিরক্ষর-মূর্খ লোক আছে যারা মিথ্যা আশা ছাড়া কিতাবের কিছুই জানে না, তারা মুধু অমূলক ধারণাই পোষণ করে(সূরা বাকারা-৭৮)
হে আমার রব! কেন আমাকে অন্ধ অবস্থায় উঠালেন? আমিতো দৃষ্টি শক্তি সম্পন্ন ছিলাম (পৃথিবীতে)। আল্লাহ বলবেন এরইরূপেই আমার আয়াত সমূহ তোমার কাছে এসেছিল, কিন্তু তুমি তা ভুলে ছিলে, আজ অনুরূপভাবে তুমিও বিস্মত হলে- তোমাকে ভুলে গেলাম (সূরা তোহা ১২৪,১২৫ ও ১২৬)
যে দিন তাদের চেহারা দোজখের আগুনের মধ্যে উলট-পালট করা হবে, সেই দিন তারা বলবে, হায়! আমরা যদি আল্লাহর আনুগত্য ও রাসূলের আনুগত্য করতাম। তারা আরও বলবে, আমরা তো আনুগত্য করতাম আমাদের নেতাদের ও প্রধানদের। অতএব, তারাই আমাদের পথভ্রষ্ট করেছিল। হে আমাদের রব! তাই আপনি তাদেরকে দ্বিগুণ শান্তি প্রদান করুন এবং তাদের প্রতি লানত করুন-মহা লানত (সূরা আহজাব ৬৬-৬৮)
আমি কোরআন কে বুঝার জন্য সহজ করেছি-সহজ করে দিয়েছি উপদেশ গ্রহণের জন্য, অতএব কোন উপদেশ গ্রহণকারী আছে কি? (সূরা আল কামার ১৭)।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কুরআন তেলাওয়াতের গুরুত্ব উপলব্ধি করে দুনিয়া ও পরকালের সফলতার জন্য কুরআনের বিধান অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করার তাওফিক দান করুন। আমিন।