বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

অনশনে অসুস্থ শিক্ষকরা, আশ্বাস মেলেনি

news-image

এমপিওভুক্তির দাবিতে রবিবার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আমরণ অনশনে থাকা শিক্ষকদের ১২ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে কোনও আশ্বাস পাওয়া যায় নি। এদিকে অনশনকারীদের চিকিৎসার জন্য মেডিক্যাল টিমের ব্যাপারে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ডিএমসি) হাসপাতালের পরিচালক বরাবর আবেদন করলেও সাড়া মেলেনি। নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মাহমুদুন্নবী  এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘অনশনের কারণে আমাদের ১২জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়লে আমরা তাদের ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে যাই। সেখান থেকে কয়েকজন শিক্ষক প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে আসেন, আর কয়েকজন ভর্তি হয়েছেন। আমরা এখন নিজেদের উদ্যোগেই অসুস্থদের স্যালাইন দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।’

সোমবার দুপুরে অনশনরত কয়েকজন শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আমরণ অনশনের দ্বিতীয় দিন সকালে ১২ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে গেলে তাদের ডিএমসি’তে নিয়ে যাওয়া হয়। ডিএমসি’র জরুরি বিভাগের ডাক্তাররা হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দিলে তাদের মধ্যে থেকে চার জন প্রেসক্লাব এলাকায় ফেরত চলে আসেন।

 

হাসপাতাল থেকে ফিরে এসে পাবনার খতিব আব্দুল জাহিদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো নান্নু মিয়া  বলেন, ‘সকাল থেকে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। এমনিতে আমার ডায়বেটিস আছে। ডাক্তার আমাকে বলেছেন এই অবস্থায় অনশন না করতে । কিন্তু আমি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে অনশন করতে চাই না। আমার মতো আরও শিক্ষক আছেন। আমরা সবাই মরলে এক জায়গায় মরবো। এখানেই মরবো।’

নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মাহমুদুন্নবী বলেন, ‘রবিবার বিকালে একটি মেডিক্যাল টিমের জন্য অনুরোধ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং ডিএমসি’র পরিচালক বরাবর একটি লিখিত আবেদন করা হয়। কিন্তু স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের মহাপরিচালক বলছেন তিনি অক্ষম। এখানে কিছু করার নেই।’

এ  ব্যাপারে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল হক খানের কাছে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি ব্যস্ত আছেন এবং পরে কথা বলবেন বলে জানান। স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদের অফিসের নম্বরে যোগাযোগ করা হলেও কেউ ফোন ধরেননি।

উল্লেখ্য, এমপিওভুক্তির দাবিতে দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে আন্দোলন করে আসছেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। আমরণ অনশন, অবস্থান ধর্মঘট, শিক্ষামন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর বিভিন্ন সময়ে তারা স্মারকলিপি দিয়েছেন তারপরও (২০১৬-১৭) এবং (২০১৭-১৮) অর্থবছরের বাজেটে নন-এমপিও শিক্ষকদের এমপিওভুক্তি অথবা বাড়তি ভাতার ব্যবস্থা করতে কোনও বরাদ্দ রাখা হয়নি। তাই ২৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা আবারও অবস্থান নিয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে ৩১ ডিসেম্বরে থেকে আমরণ অনশন ধর্মঘট পালন করছেন তারা।

Print Friendly, PDF & Email