মঙ্গলবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং ১১ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ত্রিদেশীয় সিরিজে কে ফেভারিট ?

news-image

স্পোর্টস ডেস্ক : ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু হতে বাকি চারদিন। বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের ম্যাচ দিয়ে ১৫ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে ত্রিদেশীয় সিরিজ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকায় আসছে জিম্বাবুয়ে। আর শ্রীলঙ্কান টিম আসবে শনিবার।

সিরিজে ভালো করার জন্য প্রস্তুত টাইগার স্কোয়াড। ভালো করার জন্য দলে কিছু পরিবর্তনও আনা হয়েছে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টি টুয়েন্টিতে খুব ভালো খেলতে না পারায় দল থেকে বাদ পড়েছেন সৌম্য সরকার ও তাসকিন আহমেদ।

অন্যদিকে দলে সুযোগ পেয়েছেন দীর্ঘদিন বাইরে থাকা এনামুল হক বিজয় ও আবুল হাসান রাজুর মতো ক্রিকেটাররা।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়েছেন, এটাই ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতার সেরা সুযোগ।

তিনি বলছেন, দক্ষতা ও ক্রিকেটারদের অভিজ্ঞতার দিক থেকে আমরাই এগিয়ে। তার ওপর দেশের মাটিতে খেলা।

সুজন আরও বলেন, ওয়ানডে খেলাটিতে দক্ষতার সাথে স্নায়ুচাপ সামলানো বড় ভূমিকা পালন করে। দেখুন একদিনেই খেলা শেষ, তাই নির্দিষ্ট দিনে ভালো খেলতে হবে।

খালেদ মাহমুদ সুজনের মতে, এই আসরে ফেভারিট দল হলেও বাংলাদেশ এখন চাপহীন। প্রতিটি ম্যাচেই গুরুত্ব দিয়ে খেলার পরিকল্পনা আঁটছে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট।

সাথে তিনি জানান, অনেকদিন ওয়ানডে না খেললেও বা প্রস্তুতি ম্যাচ না থাকলেও এটা কোনো প্রভাব ফেলবে না।

শ্রীলঙ্কা দলেও বেশ কিছু পরিবর্তন এসেছে। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ পুনরায় অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়েছেন। দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান দিনেশ চান্দিমালও ফিরেছেন ওয়ানডে দলে।

তবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট বলেন, যেহেতু বাকি দুটি দল শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে, এখানে বাংলাদেশ অভিজ্ঞতায় অনেক এগিয়ে থাকবে।

পাইলট বলেন, লঙ্কান দলটা একটা পটপরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে ফলে এরা অধিকাংশই তরুণ। নিজেদের প্রমাণ করতে মুখিয়ে আছেন তারা।

তবে তিনি যোগ করেন, শ্রীলঙ্কা দলকে মোটেও ছোট করে দেখার কিছু নেই। কারণ পরিবেশ বা আবহাওয়া লঙ্কানদের অনুকূলে থাকবে। বেশ কয়েকজন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটেও খেলেছে।

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের বর্তমান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের কোচ ছিলেন প্রায় ৩ বছর। বাংলাদেশের শক্তি ও দুর্বলতা সম্পর্কে তিনি অবগত বলেই মনে করেন ক্রিকেট সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে ২০০৯ সালে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে যায় বাংলাদেশ।

ক্রিকেট বিশ্লেষকরা বলছেন, তুলনামূলক দুর্বল দল হলেও জিম্বাবুয়ের হারানোর সক্ষমতা রয়েছে যেকোনো দলকে।

হ্যামিলটন মাসাকাদজা, সিকান্দার রাজা, অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমারের সাথে যোগ দিয়েছেন দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার ব্রেন্ডন টেইলর। এর আগে ব্রেন্ডন টেইলর কাউন্টি খেলার জন্য জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছিলেন।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Print Friendly, PDF & Email