মঙ্গলবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং ১১ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতির সভাপতি সম্রাট ,সেক্রেটারি সোহাগ

news-image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতি’র নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদমিনার চত্বরে সমিতির সাবেক ও বর্তমান কমিটির সদস্য ও নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সভায় ৩৬ সদস্যবিশিষ্ট নতুন এই নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৪২তম আবর্তনের শিক্ষার্থী রিয়াজউদ্দিন সম্রাটকে সভাপতিএবং জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের ৪৩তম আবর্তনের শিক্ষার্থী মাহমুদুল হক সোহাগকে সাধারণসম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। ২০১৮-১৯ সালের জন্য নবগঠিত এই কমিটি এক বছর মেয়াদের জন্যকার্যকর থাকবে।

কমিটি ঘোষণার পর সদ্য বিদায়ী সভাপতি এনামুল হক এনাম নতুন কমিটিকে শুভেচ্ছা জানিয়ে নতুনদেরকেসহায়তার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান নবনির্বাচিত সভাপতি রিয়াজউদ্দিন সম্রাট বলেন বিগত সভাপতিগণযেভাবে সুন্দরভাবে তাদের কাজ চালিয়েছেন, আমিও তাদের পথ ধরে জেলা সমিতিকে পরিচালনা করে জেলাসমিতির অগ্রগতির জন্য কাজ করে যাবো।

নবনির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক সোহাগ বলেন, সাংস্কৃতিক রাজধানীখ্যাত জাহাঙ্গীরনগরবিশ্ববিদ্যালয়ের শি¶ার্থী হিসেবে এই জেলা সমিতির মাধ্যমে আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি ওঐতিহ্যকে সারাদেশ তথা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে চাই সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিভিন্ন কল্যাণমূলক কার্যক্রমেনিয়োজিত রেখে সফলভাবে পথ চলতে চাই। এক্ষেত্রে সকলে আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি।’

নবগঠিত কার্যকরী কমিটিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত অন্যান্যরা হলেন: সহ সভাপতি আশরাফ ফাহিম, তাহমিনা আক্তার, এমএ মতিন ও রাবিদুল ইসলাম রাবিদ যুগ্মসাধারন সম্পাদক মল্লিকা লিজা, ইসরাত জাহান, রাসেল ও রাইসুল ইসলাম।সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান আহমেদ, সহ-গঠনিক সম্পাদক আসিফ ও ইমরান আহমেদ।

এছাড়াও দপ্তর সম্পাদক আল ফোরকান, প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিতু সাহা, ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক তাসমিয়া স্নেহা, অর্থ-সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন।
উল্লেখ যে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়স্থ ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতি’ ১৯৯২ সালে ‘বৃহত্তর কুমিল্লাজেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতি’ থেকে পৃথক হয়ে কার্যক্রম শুরু করে। প্রতিষ্ঠাকালীন সংগঠনটির প্রধান পৃষ্ঠপোষকছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. খন্দকার মোস্তাহিদুর রহমান।

বর্তমান কমিটিতেবিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ২০ জনেরও অধিক শিক্ষক সংগঠনটির উপদেষ্টামন্ডলীর দায়িত্ব পালন করছেন।

সংগঠনাটির সূচনালগ্ন থেকে বিভিন্ন সময়ে দূর্যোগ ও ত্রাণ সহায়তা, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতাপ্রদান, ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীরেদ নবীনবরণ সংবর্ধনাসহ বিভিন্ন অর্থনৈতিক ও সামাজিক কল্যাণমূলক কার্যক্রমপরিচালনা করে আসছে।

বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ২৩২ জন সংগঠনটিরসদস্যের তালিকাভুক্ত রয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email