মঙ্গলবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আইনের শাসনে বাংলাদেশের অবস্থান তলানিতে

news-image

আইনের শাসনের দিক থেকে সবচেয়ে নিচে যে দেশগুলো আছে তার অন্যতম বাংলাদেশ। দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে নিচে আছে যে তিনটি দেশ তার মধ্যেও রয়েছে বাংলাদেশ। এশিয়ায় সবচেয়ে নিচে অবস্থান করছে কম্বোডিয়া। তার একধাপ উপরে পাকিস্তান। আর বাংলাদেশ রয়েছে তার এক ধাপ উপরে। এরপরে ঊর্ধ্বক্রম অনুসারে রয়েছে যথাক্রমে মিয়ানমার, ফিলিপাইন, চায়না, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালয়েশিয়া, মঙ্গোলিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও সিঙ্গাপুর।

সম্প্রতি ভারতের ডাটালিডস-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। বিশ্বের মোট ১১৩টি দেশের ওপর তথ্যভিত্তিক ইনফোগ্রাফ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। এর মধ্যে আইনের শাসনের সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ১০২ নম্বরে। ওয়ার্ল্ড জাস্টিস প্রজেক্ট রুল অব ল’ ইনডেস্কের ওপর ভিত্তি করে এই ডাটা উপস্থাপন করা হয়েছে। এতে এশিয়ায় আইনের শাসনের দিক দিয়ে সবচেয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে সিঙ্গাপুর। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে জাপান ও তৃতীয় অবস্থানে আছে দক্ষিণ কোরিয়া।

তবে ভারতের অবস্থান ৮ নম্বরে। সারা বিশ্বের হিসাবে সিঙ্গাপুর রয়েছে ওই সূচকের ১৩ নম্বরে। সাধারণ মানুষ আইনের শাসন বিষয়ে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করছেন সেটাই এ রিপোর্টের বিবেচ্য বিষয়। মোট ১১৩টি দেশের ভেতরে জাপানের অবস্থান ১৪ নম্বরে। এক্ষেত্রে দক্ষিণ কোরিয়ার অবস্থান ২০তম। উল্লেখ্য, গত দুই দশক ধরে অব্যাহতভাবে গণতান্ত্রিক ধারায় এগিয়ে যাচ্ছে মঙ্গোলিয়া। তাই ১১৩টি দেশের মধ্যে তাদের অবস্থান ৫১তম।

এজন্যই এশিয়ার শক্তিধর দেশ ভারত, পাকিস্তান, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়াসহ অনেক দেশকে পেছনে ফেলে গিয়েছে মঙ্গোলিয়া। এর আগের সূচকের চেয়ে ৯ ধাপ এগিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ফলে সবচেয়ে বেশি অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে শ্রীলঙ্কায়। এতে বলা হয়েছে, ক্রমাগত ধর্মীয় অধিকারের উত্থান ঘটলেও আইনের শাসনের দিক দিয়ে একইভাবে অবনতি দেখা গেছে ভারতে। তাই ১১৩টি দেশের মধ্যে ৬২তম অবস্থানে রয়েছে দেশটি। ইন্দোনেশিয়ায় রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে রয়েছে দুর্নীতির অভিযোগ।

এর পাশাপাশি বেড়েছে ধর্মীয় উত্তেজনা। এ দেশটি রয়েছে সার্বিক সূচকে ৬৩ নম্বরে। সামরিক শাসনের অধীনে রয়েছে থাইল্যান্ড। সব দেশের মধ্যে তাদের অবস্থান ৭১তম। এরপরে ৭৪ নম্বরে রয়েছে ভিয়েতনাম, ৭৫ নম্বরে চীন।

 

mzamin.com