রবিবার, ২২শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং ৯ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ফাইনালে বৃষ্টি হলে কী হবে সমীকরণ

news-image

স্পোর্টস ডেস্ক : নিদাহাস ট্রফির ম্যাচকে ঘিরে বিরাজ করছে টানটান উত্তেজনা। দুই ফাইনালিস্ট বাংলাদেশ ও ভারতের সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যে শুরু করেছেন স্নায়ু যুদ্ধ! বিশেষ করে ভারতীয় মিডিয়াগুলো উঠে পড়ে লেগেছে বাংলাদেশের বিপক্ষে। তারা ইতোমধ্যেই বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে হেয় প্রতিপন্ন করেছে একটি রিপোর্টে।

এমন সব উত্তেজনাপূর্ণ বিষয়ের মাঝেও ম্যাচের আগে ভাবাচ্ছে যদি বৃষ্টি হয়! ইংরেজি বছরের শেষদিক থেকে মার্চ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কায় বৃষ্টি হয় কম। তবে চলতি মার্চে বেশ কয়েকবার কলম্বোয় হানা দিয়েছে বৃষ্টি। এতে নিদাহাস ট্রফির কিছু ম্যাচও বাঁধাগ্রস্ত হয়েছে একটু-আধটু। দেশটির আবহাওয়া অফিস বলছে, বেরসিক বৃষ্টি হানা দিতে পারে রোববারের ফাইনাল ম্যাচেও!

শ্রীলঙ্কার আবহাওয়া নিয়ন্ত্রকরা জানিয়েছেন, রোববার সকাল থেকেই বৃষ্টি হতে পারে কলম্বোয়। তবে সেই বৃষ্টি ঝড়ো না হওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল। আর যদি সকালে বা দুপুরে বৃষ্টি না-ও হয়, তবে বেরসিক প্রাকৃতিক শক্তির আগমন ঘটতে পারে সন্ধ্যায়, অর্থাৎ ম্যাচ চলাকালে। তবে সেই সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

তারপরও ‘মার্চ মাসে শ্রীলঙ্কায় বৃষ্টি হয় না’ তত্ত্বটা ভাবাচ্ছেই। যদি বৃষ্টি হয়ই ম্যাচ চলাকালে, সেক্ষেত্রে কী হবে ফলাফল? ফাইনাল ম্যাচের জন্য কোনো রিজার্ভ ডে রাখেনি টুর্নামেন্টের আয়োজন এসএলসি। বৃষ্টি-বাঁধা এলে তাই প্রথম চেষ্টা হবে কার্টেল ওভারে খেলা। যদিও সেটাও সম্ভব না হয়, তাহলে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হবে দুই দলকেই। একই ফল আসবে যদি ম্যাচ টাই হয়- সেক্ষেত্রেও।

গ্রুপ পর্বে দুটি ম্যাচ জিতে বাংলাদেশ নিশ্চিত করে নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল। ভারতের কাছে আসরে আগের দুটি ম্যাচে হারলেও রিয়াদ-সাকিবরা জয় পান স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। অন্যদিকে আসরের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে বাজে শুরু করলেও পরের তিন ম্যাচেই জয় তুলে নিয়ে ফাইনালে উঠে ভারত। এশিয়ার তিন পরাশক্তির লড়াই থেকে এক দল বাদ ইতোমধ্যেই। বাকি দুই দল বাংলাদেশ ও ভারতের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণের ম্যাচটি এখন হয়ে আছে ক্রিকেট বিশ্বের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু।

Print Friendly, PDF & Email