বুধবার, ২৩শে মে, ২০১৮ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রীতির সাথে ‘ভাংড়া’ নাচলেন গেইল

news-image

গেইলের সাথে নাচলেন প্রীতি জিনতা। নাচলেন পুরো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। গেইল যে ফুরিয়ে যায়নি তাই বোঝালেন ক্যারবীয় দানব। এতদিন গেইলকে যারা অচল বলেছেন তারা আজ বলছেন এখনো সব শেষ হয়ে যায়নি। যে কোনো সময় ম্যাচকে জেতাতে গেইলের জন্য ব্যাপারই না। তবে গেইল ব্যাটে যেমন তার জবাব দিয়েছেন তেমনি মুখেও দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার গেলের ব্যাটিংয়ের দাপটে সানরাইজার্সকে হারানোর পরে তো ভাংড়াও নাচেন গেইলের সাথে প্রীতি। ভাংড়া পাঞ্চাবের ঐতিহ্যবাহী নাচ। বরাবরই নাচ-গানে ভালো পটু ক্যারিবিয়ান গেইল তাই ভাংড়ার স্বাদ নিতে ভুললেন না।

গতকাল ম্যাচের মাঝপথেই যারা তাকে বুড়ো বলে বাতিল করে দিয়েছিলেন, তাদের এক হাত নিয়েছেন। ম্যাচ শেষেও কথার তোড়ে সবাইকে উড়িয়ে দিয়েছেন ক্যারিবীয় ওপেনার। আইপিএলে নিলামের শেষ মুহূর্তে গেইলকে কেনার সিদ্ধান্ত নিয়ে বীরেন্দর শেবাগ নাকি টুর্নামেন্টটাই বাঁচিয়েছেন!

প্রথম দুই ম্যাচে বসে থাকতে হয়েছে গেইলকে। তৃতীয় ম্যাচে সুযোগ পেয়েই বলপ্রতি প্রায় দুই রান করে তুলেছেন ৬৩। কাল তো সেটাকেও তুচ্ছ বানিয়ে পেয়েছেন ক্যারিয়ারের ২১তম টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরি। দুই ম্যাচ বসে থাকার পর টানা দুই ম্যাচে ম্যাচ সেরা! নিজেকে অবজ্ঞার জবাব এভাবেই বোধ হয় দিতে হয়।

গেইল অবশ্য জবাবের প্রসঙ্গ উড়িয়ে দিলেন, তার মারা ছক্কাগুলোর মতোই, আমি সব সময়ই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। অনেকেই বলতে পারে, গেইলের প্রমাণ করার আছে অনেক কিছু, কারণ ওকে আগের ম্যাচে নেওয়া হয়নি কিংবা নিলামের শুরুতে কেনা হয়নি। কিন্তু আমি বলব, বীরেন্দর শেবাগ, তুমি আমাকে নিয়ে আইপিএলকে বাঁচিয়েছো!

এ বয়সে এসে গেইলের এ নতুন করে প্রমাণ কিছু করার নেই, সেটা সবাই মানেন। কিন্তু সমালোচকেরা হয়তো সেটা ভুলে গিয়েছিলেন। কাল ম্যাচ শেষে গেইল তাই আবারও মনে করিয়ে দিলেন, সময় কারও জন্য বসে থাকবে না। আমি এখানে কিছু প্রমাণ করতে আসিনি। আমি এসব আগেই দেখেছি, সবকিছু করা শেষ আমার। এ নামটাকে একটু শ্রদ্ধা করুন। সব কোচকেও বলছি, একটু শ্রদ্ধা রাখুন।

Print Friendly, PDF & Email