বুধবার, ২৩শে মে, ২০১৮ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মানবাধিকার লঙ্ঘনে শীর্ষে চীন, রাশিয়া, মিয়ানমার, উত্তর কোরিয়া

news-image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মানবাধিকার বিষয়ক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছরের যুক্তরাষ্ট্রের বার্ষিক এই প্রতিবেদনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শীর্ষে অবস্থান করছে চীন, রাশিয়া, ইরান, উত্তর কোরিয়া, মিয়ানমার, ভেনিজুয়েলা এবং তুরস্ক। প্রতি বছর বিশ্বের ২০০টি দেশের ওপর জরিপ চালিয়ে যুক্তরাষ্ট্র এই তালিকা প্রকাশ করে।শুক্রবার প্রকাশিত হয়েছে এই প্রতিবেদনটি। খবর রয়টার্স ।

প্রতিবেদনে চীন, রাশিয়া, ইরান এবং উত্তর কোরিয়ার সরকারকে ‘অস্থিতিশীল’বলে মন্তব্য করা হয়েছে।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, চীনা প্রশাসন নির্বিচারে আটক, নির্যাতন, বাক-স্বাধীনতা হরণের মত মানবাধিকার লঙ্ঘনের সঙ্গে জড়িত। এছাড়া দেশটির মুসলিম সংখ্যালঘু উইঘোর জনগোষ্ঠী এবং তিব্বতের নাগরিকদের চলাফেরা ও ধর্মীয় অধিকারের ওপর বাধা আরোপের অভিযোগ রয়েছে।

বিচার বর্হিভূত হত্যাকাণ্ড, কৌশলগত নির্যাতন, নির্বিচারে আটক, রাজনৈতিক বন্দিত্ব, বিচারবিভাগের স্বাধীনতার অভাব, গণমাধ্যমের ওপর হস্তক্ষেপ এর জন্য প্রতিবেদনে রাশিয়াকে দায়ী করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে মিয়ানমারের বিষয়ে বলা হয়, ২০১৭ সালের পুরোটা সময় জুড়ে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা জাতিগত নিধনের শিকার হয়েছে। রাখাইনে নির্বিচারে গ্রেপ্তার, আটক, হত্যাকাণ্ডের মত ঘটনা ঘটেছে। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে আটক, সাংবাদিকদের গ্রেপ্তার ও গণমাধ্যমের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে সিরিয়ার মানবাধিকার ‘ভয়াবহ’ পর্যায়ে রয়েছে বলে মন্তব্য করা হয়। যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার, আবাসিক এলাকায় বোমা হামলা, ঘরবাড়ি-রাস্তাঘাট ও স্থাপনা ধ্বংস, চিকিৎসা সামগ্রী নষ্ট, মৃত্যুদণ্ড, ধর্ষণ, যুদ্ধাস্ত্র, গণহত্যা, ক্ষুধা, বাস্তুহারা নাগরিকদের শরণার্থীতে পরিণত হওয়ার মত নৃশংস ঘটনাগুলো বলে দেয় দেশটিতে মানবাধিকার নির্মমভাবে ভূলুণ্ঠিত হয়েছে।

প্রতিবেদনে উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে বলা হয়, উত্তর কোরিয়া মৌলিক মানবিক অধিকারের প্রতিটি ক্ষেত্রই লঙ্ঘন করেছে। জীবনের সাধারণ কার্যক্রমেও সেখানে বিধি-নিষেধ রয়েছে।

২০১৬ সালে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে পর দেশটির সরকারের ওপর সাংবাদিক ও আইন-প্রণেতাসহ হাজারো নাগরিকদের আটক, জরুরি অবস্থার সুযোগে নির্বিচারে নির্যাতন, গুম, আটক-গ্রেপ্তারের মত ঘটনা ঘটেছে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়।

প্রতিবেদনে ভেনিজুয়েলা সম্পর্কে বলা হয়েছে, দেশটিতে মাদুরো সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য চরমভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে।

Print Friendly, PDF & Email