শনিবার, ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ইফতারের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মাসআলা

news-image

হাফেজ মাওলানা মো. নাসির উদ্দিন : দেরি না করে র্সূযাস্তের সঙ্গে সঙ্গে ইফতার করা মুস্তাহাব। হাদিস শরীফে আছে, যতদিন দেরি না করে র্সূযাস্তের সঙ্গে সঙ্গে ইফতার করবে ততদিন কল্যাণের উপর থাকবে। (বুখারী শরীফ ১/২৬৩)

খেজুর দ্বারা ইফতার করা মুস্তাহাব। খেজুর না পেলে পানি দ্বারা ইফতার শুরু করা।হাদিস শরীফে আছে, হজরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) থেকে বর্নিত, নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যার কাছে খেজুর আছে সে খেজুর দ্বারা ইফতার করবে। খেজুর না পেলে পানি দ্বারা ইফতার করবে। কেননা পানি হলো পবিত্র। (তিরমিজি শরীফ ৬৯০;মুসান্নাফে আব্দুর রাযযাক ৭৫৮৬)

হজরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) বলেন,নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাগরিবের নামাজ পড়ার আগে তাজা খেজুর দিয়ে ইফতার করতেন, তাজা খেজুর না পেলে শুকনা খেজুর দ্বারা, আর তাও না পেলে এক ঢোক পানি দ্বারা ইফতার করতেন। (তিরমিজি শরীফ ৬৯২)

ইফতারের সময় দোয়া কবুল হয়। তাই উচিত বেশি বেশি দোয়া করা। হাদিস শরীফে আছে, তিন ব্যক্তির দোয়া ফেরত দেওয়া হয় না। (১) রোজাদার ব্যক্তির ইফতারের সময়ের দোয়া (২) ন্যায়পরায়ণ শাসকের দোয়া (৩) মজলুমের দোয়া।

Print Friendly, PDF & Email