শনিবার, ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যে কারণে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেও নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি না শাকিল খান

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : চিত্রনায়ক শাকিল খান বাগেরহাট-৩ (রামপাল-মোংলা) আসনের উপনির্বাচনে লড়ছেন এমনটাই গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ পায়। তবে শাকিল জানালেন তিনি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না। তিনি বলেন, ‘আমি উপ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সমস্ত প্রস্তুতিই গ্রহণ করেছিলাম। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ডেকে বললেন এই ক’দিনের জন্য নির্বাচনে অংশ নিয়ে লাভ নেই পরবর্তী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নাও। আমি স্বাভাবিক ভাবেই নেত্রীর কথা মেনে আর নির্বাচন করছি না।’

শাকিল খান বলেন, ‘আমি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য গত রবিবার আমার পক্ষে ভাগনে শাহরিয়ার নাজিম মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে। এলাকায় আমার প্রচারণাও ছিল বঙ্গবন্ধুর পক্ষে। নেত্রী (শেখ হাসিনা) গতকাল আমাদের সবাইকে যারা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে অংশ নিতে চেয়েছিলাম ডেকে বললেন প্রার্থী খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র তালুকদার আবদুল খালেকের স্ত্রী হাবিবুন নাহার। একইসাথে তিনি আমাদের পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলেন। নেত্রীর যেটা সিদ্ধান্তই আমার কাছে চূড়ান্ত। কারণ আমার একটাই মার্কা নৌকা।’

বাগেরহাট জেলা নির্বাচন অফিস থেকে হাবিবুন নাহারের পক্ষে আজ মঙ্গলবার দুপুরে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন বাগেরহাট পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র তালুকদার আবদুল বাকী।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাগেরহাট-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সম্প্রতি হয়ে যাওয়া খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য স্পিকারের কাছে সংসদ সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি নিয়েছিলেন তিনি। এরপর স্পিকার নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিলে ১০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়।

নির্বাচন কমিশন আগামী ২৬ জুন এ আসনে উপনির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করে ১৬ মে তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৪ মে, যাচাই-বাছাই ২৭ মে এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩ জুন।

কোনো আসন শূন্য হলে সেখানে ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন আয়োজনে নির্বাচন কমিশনের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। বাগেরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন মল্লিক বলেন, রামপাল ও মোংলা উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ২৭ হাজার ৬৪৬। উপনির্বাচনে অংশ নিতে মঙ্গলবার পর্যন্ত দুজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। কালের কণ্ঠ

Print Friendly, PDF & Email