শনিবার, ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ঈদে দিনের সাজ

news-image

ঈদের রঙে সবাই যেন রঙিন হয়ে উঠে। যেমন পোশাকে, তেমনি সাজে। ঈদের সারাদিন কি আর এক সাজ-পোশাকে মন ভরে। বেলা বুঝে সাজেও তাই থাকা চাই ভিন্নতা।

আসুন জেনে নেই ঈদের দিনের তিন বেলা কীভাবে সাজবেন।

সকালে স্নিগ্ধ

যেহেতু গরম, তাই ঈদের সকালের সাজটা হতে হবে আরামদায়ক, স্নিগ্ধ আর সতেজ। এতে আপনি যেমন স্বস্তিতে থাকবেন তেমনি আপনাকে যিনি দেখবেন তিনিও স্নিগ্ধতা অনুভব করবেন। সকালের স্নিগ্ধ সাজে বেস মেকআপে শুধু কমপ্যাক্ট পাউডার দিয়ে তার ওপর ফেস পাউডার লাগিয়ে নিন।

এখন আইলাইনার এবং কাজলের ব্যবহার কিছুটা কমে গেছে। অন্য বেলায় পারলেও সকালের স্নিগ্ধ সাজে আইলাইনার এবং কাজল না লাগিয়ে ভারি করে মাশকারা লাগান। গালে দিন হালকা গোলাপি ব্লাশন। ঠোঁটে হালকা করে লাগিয়ে নিন বাঙ্গি, বাদামি, গোলাপি, কফি রঙের লিপস্টিক। কপালে দিন ছোট্ট একটি টিপ। সকালের স্নিগ্ধ সাজের সঙ্গে ভালো লাগবে মুক্তা, পুঁতি কিংবা স্টোনের ছোট গহনা।

দুপুরে অনন্যা

ঈদের দুপুরের সাজে হয়ে উঠতে পারেন অনন্যা। তবে বেসটা কিন্তু সকালের মতো হালকাই রাখতে হবে। নয়তো রোদ গরমে মেকআপ তো নষ্ট হবেই আপনিও থাকবেন অস্বস্তিতে। বেস মেকআপ হালকা রাখতে এ বেলাতেও মুখে শুধু কমপ্যাক্ট পাউডার বুলিয়ে নিন।

দাওয়াত থাকলে চোখে চিকন করে টেনে আইলাইনার দিতে পারেন। রোদ থাকলে মাশকারা এড়িয়ে চলুন। সাজে উৎসবের ছোঁয়া লাগাতে চোখে ব্যবহার করতে পারেন শাইনি আইশ্যাডো। এছাড়া একটু ভারি বেস, ন্যাচারাল অথবা হালকা টোনের লিপস্টিক তো থাকছেই। স্টোন আর মেটালে গহনা এ বেলায় বেশ মানাবে।

জমকালো রাতের সাজ

রাতের সাজটা বেশ জমকালো করতে পারেন। রাতের নিমন্ত্রণের সাজে প্রথমেই লাগিয়ে নিন প্রাইমার। এর ওপর ফাউন্ডেশন, প্যানকেক কিংবা প্যানস্টিক দিয়ে বেস করুন। মুখে দাগ থাকলে কনসিলার দিয়ে দাগ ঢেকে দিন।

এরপর ব্যবহার করুন স্কিনটোন ফেস পাউডার। চাইলে লিকুইড বেসও করতে পারেন। রাতের সাজে শিমার ব্যবহার করুন। এতে সাজে গার্জিয়াল লুক আসবে। চোখের সাজটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ এ বেলায়। স্মোকি কিন্তু উজ্জ্বল হলে পুরো সাজটিই জমবে ভালো।

চোখের পাতায় প্রথমে কালো আইশ্যাডো, এর পরের অংশে পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে কোনো রং এবং তার ওপরের অংশে সোনালি বা রুপালি আইশ্যাডো লাগান। অর্থাৎ তিনটি রঙের মিশ্রণে চোখ দুটোকে সাজাতে পারেন। চোখের সাজটি উজ্জ্বল হলে এর সঙ্গে কফি, বেগুনি, ডার্ক মেরুন কিংবা বাদামি ম্যাট লিপস্টিক মানাবে।

দিন-রাত সব বেলার সাজেই লিপসেলার ব্যবহার করতে পারেন। লিপসেলার মেকআপ রিমুভার ছাড়া ওঠে না। খাবার সময়ও তাই নষ্ট হয় না। ঠোঁটের ওপর গ্লিটার ব্যবহারও এখন চলছে। রাতের সাজে ব্লাশন বেছে নিন গাঢ় শেডের মেরুন, গোলাপি কিংবা বাদামি থেকে। ঈদের রাতের সাজের সঙ্গে গোল্ড, স্টোন, ফ্রেন্সি, মেটাল, পুঁতিসহ সব ধরনের গহনাই ভালো লাগবে।

ঈদের সাজে চুল সাজাতে

ঈদের সকালে কাজের ব্যস্ততা একটু বেশিই থাকে। এসময় এমন হেয়ার স্টাইল বেছে নিন যাতে আরামবোধ করেন। সকালের দিকটায় পনিটেইল কিংবা উঁচু করে হাত খোঁপা করতে পারেন। আবার ঘাড়ের ওপর লুজ হাত খোঁপা করে বেলি কিংবা পছন্দমতো কোনো ফুল কিংবা ফুলের মালা জড়িয়ে রাখলেও সকালের øিগ্ধতায় ভরে উঠবে চারপাশ।

দুপুরের সাজে এলোবেণি, খেজুর বেণি, ফ্রান্স বেণিসহ বিভিন্ন ধরনের স্টাইলিশ বেণি ভালো লাগবে। ফ্রন্টসেটিং করে উঁচু করে পেঁচানো খোঁপাও করতে পারেন। খোঁপা কিংবা বেণিতে গুঁজে দিতে পারেন ছোট কোনো ফুল।

রাতের নিমন্ত্রণের বিভিন্ন ধরনের ফেন্সি খোঁপা করে তাক লাগাতে পারেন প্রিয়জনদের কাছে। রোল, বেণি, টুইস্ট নানাভাবে ফ্রন্টসেট করে পেছনে খোঁপা করতে পারেন। এছাড়া চুলটাকে কার্ল, ব্লো ডাই কিংবা সামনে পাপ আর পেছনে আয়রন করে ছেড়েও রাখতে পারেন।

ফেঞ্চ স্টাইলের খোঁপা করেও নজরকাড়া হয়ে উঠতে পারেন। ফ্রেঞ্চ খোঁপা করতে চাইলে জেনে নিন নিয়মটি- একপাশে সিঁথি করে কপালের এক পাশ পুরো ঢেকে দিন। আরেক পাশ ব্যাক কোম্ব করে আঁচড়ে নিন। এবার পেছনের চুলগুলোকে ফ্রেঞ্চ স্টাইলে ঘুরিয়ে খোঁপা করে নিন। ব্যস, চুলের সাজেও এসে যাবে ঈদের আমেজ।

Print Friendly, PDF & Email