সোমবার, ১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পিছিয়ে গেলেন শাকিব!

news-image

বিনোদন প্রতিবেদক : ভারতের পশ্চিমবঙ্গে নয়, নিজের দেশে পিছিয়ে গেল শাকিব খানের ‘ভাইজান এলো রে’ ছবি। কথা ছিল, ছবিটি আগামী শুক্রবার বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়া হবে। ছবির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এন ইউ ট্রেডার্স থেকে জানা গিয়েছিল তা। কিন্তু মুক্তির একদিন আগে আজ বুধবার জানা গেল অন্য কথা। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে না ২০ জুলাই। এবার সিদ্ধান্ত হয়েছে, ২৭ জুলাই ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে।

শাকিব খানের ছবি মুক্তির তারিখ পিছিয়ে গেলেও একই দিনে মুক্তি পাচ্ছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নায়ক জিৎ আর বাংলাদেশের মিম অভিনীত ছবি ‘সুলতান: দ্য সেভিয়ার’। ভারতের এই বাংলা ছবির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া।

এন ইউ ট্রেডার্সের কর্ণধার ও প্রযোজক কামাল মোহাম্মদ কিবরিয়া এখন যুক্তরাষ্ট্রে। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপের পরই দেশের দর্শক যাতে “ভাইজান এলো রে” দেখে আনন্দে মেতে উঠতে পারেন, সেই চেষ্টা আগে থেকেই ছিল। সে হিসেবে ২০ জুলাই ছবিটি মুক্তি দেওয়ার প্রস্তুতি ছিল আমাদের। সেভাবে প্রস্তুতি নেওয়া হয়। ছাড়পত্র আরও আগে পাওয়া গেলে প্রচার চালাতে সুবিধা হতো।’

এন ইউ ট্রেডার্সের পক্ষে পরিচালক অনন্য মামুন আজ বুধবার প্রথম আলোকে বলেন, ‘ছবি মুক্তি দেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির একটা অনুমতির দরকার হয়। আমরা ছবিটি ২৭ জুলাই মুক্তি দেওয়ার জন্য অনুমতি পেয়েছি। তাই ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও ছবিটি মুক্তি দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।’

এদিকে শাকিব খানের ছবিটি মুক্তি না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির একজন নেতা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই প্রযোজক ও পরিবেশক প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভারতে একই দিনে মুক্তি পায় “ভাইজান এলো রে” ও “সুলতান: দ্য সেভিয়ার”। সেখানে ছবি দুটি লড়েছে বলিউডের ছবি “রেস থ্রি”র সঙ্গে। ব্যবসায়িক দিক থেকে কলকাতায় শাকিবের ছবিটি কিন্তু এগিয়ে ছিল। সেই ছবিটি নিয়ে বাংলাদেশের ছবিপ্রেমীদের আগ্রহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আমরা দেখেছি। ছবিটি যেহেতু ভারতে একই সময়ে মুক্তি পেয়েছে, বাংলাদেশেও একই সময়ে মুক্তি দেওয়া হলে ভালো হতো। ছবিটির ব্যাপারে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহের মালিকদেরও বেশ আগ্রহ রয়েছে।’

‘ভাইজান এলো রে’ ছবিতে শাকিব খান ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের দীপা খন্দকার, মনিরা মিঠু, শাহেদ আলী, কলকাতার জনপ্রিয় নায়িকা শ্রাবন্তী, পায়েল, শান্তিলাল, রজতাভ দত্ত প্রমুখ। ছবিটি পরিচালনা করেছেন জয়দীপ মুখার্জি।

গত সোমবার ‘ভাইজান এলো রে’ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড থেকে আনকাট ছাড়পত্র পেয়েছে। কলকাতায় মুক্তির পর বলিউডের শক্তিমান অভিনেতা আশীষ বিদ্যার্থী ছবিটি দেখে মন্তব্য করেন, ‘আমি আগেই শাকিবের সঙ্গে কাজ করে বুঝতে পেরেছি, সে একজন জাত অভিনেতা। এই ছবি দিয়ে সে তা আবার প্রমাণ করল।’ অন্যদিকে কলকাতার শক্তিমান অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক শাকিবের অভিনয়ের ভূয়সী প্রশংসা করে টুইট করেছেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের নায়ক শাকিব খানের অভিনয় দেখে আমি মুগ্ধ। শুধু অভিনয় নয়, নাচ এবং ফাইটিংয়েও তার জুড়ি নেই। আমি তার “ভাইজান এলো রে” ছবি এবং আগামীর জন্য সাফল্য কামনা করছি।’