বুধবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নাসিরনগর উপজেলা বিএনপি নেতা এম এ হান্নান,আজদু মেম্বারসহ ২২ নেতাকর্মী জামিনে মুক্ত

news-image

আকতার হোসেন ভুইয়া , নাসিরনগর : নাসিরনগরে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এম এ হান্নান,বিএনপি নেতা ইউপি সদস্য আজদু মিয়াসহ ২২ নেতাকর্মী ২২দিন কারাভোগের পর জামিনে কারামুক্ত হয়েছেন। আজ রবিবার(২২ জুলাই) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তারা। নাসিরনগরে হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলা,ভাঙচুর,লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় (১ জুলাই) দুপুরে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এম এ হান্নান,বিএনপি নেতা ইউপি সদস্য আজদু মিয়া ও বিএনপির ২২ নেতাকর্মীসহ ৩৮ জন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসর্মপণ করে জামিন আবেদন করেন।

শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরাফ উদ্দিন জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এই মামলায় হাইকোর্টের বেঞ্চে বিএনপির ২২ নেতাকর্মীর জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে গত সোমবার তাদের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

নাসিরনগরে হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলা,ভাঙচুর,লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দায়ের হওয়া আট মামলার মধ্যে গত ১০ ডিসেম্বর ২০১৭ একটি মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) আদালতে দাখিল করেন পুলিশের পরিদর্শক(ইন্সপেক্টর)মাহবুবুর রহমান। আদালত অভিযোগপত্রটি আমলে নিয়ে পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

নাসিরনগর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,২০১৬ সালের ৩০ অক্টোবর নাসিরনগর উপজেলা সদরের গৌরমন্দিরে হামলা,ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক নির্মল চৌধুরী বাদী হয়ে দুই থেকে আড়াই হাজার অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

প্রসঙ্গত,ফেসবুকে ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করে ছবি পোস্টকে কেন্দ্র করে গত বছরের ৩০ অক্টোবর নাসিরনগর উপজেলা সদরে হিন্দুদের মন্দির ও ঘরবাড়িতে হামলা চালায় দুষ্কৃতিকারীরা। পরে আরও কয়েকটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে দুষ্কৃতিকারীরা। এ সব ঘটনায় নাসিরনগর থানায় পৃথক আটটি মামলা দায়ের করা হয়।