মঙ্গলবার, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং ৮ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কখন বুঝবেন আপনার স্ত্রী-ই পৃথিবীর সেরা স্ত্রী?

news-image

বিয়ের পর খেয়াল করবেন যদি অাপনার স্ত্রী নিচের চৌদ্দটা কাজ করে তাহলে ধরে নিবেন তিনি এ যুগের শ্রেষ্ঠ স্ত্রী এবং অাপনি সুখময় দাম্পত্য জীবন পার করছেন –

একঃ
যদি অাপনার অবর্তমানে তিনি অাপনার কথা আলোচনা করে অাপনার সম্পর্কে শুনতে আগ্রহবোধ করে অথবা অাপনার মুখ থেকে অাপনার জীবনের গল্প শুনতে ভালবাসে এবং অাপনি যাদেরকে ভালবাসেন তিনিও যদি তাদেরকে ভালবাসে তাহলে অাপনি চোখ বুজে ধরে নিতে পারেন অাপনি একজন স্বামী
সোহাগীনি (উরুবান) স্ত্রী পেয়েছেন.

দুইঃ
অাপনি উনার মতের বিপরীতে কাজ করলে উনার সাথে কোনও বিষয়ে একমত না হলেও উনি যদি রাগ না
করে,গাল ফুলিয়ে না থাকে তাহলে ধরে নিবেন অাপনি একজন ভাগ্যবান স্বামী বটে.তবে মনে রাখতে হবে সিদ্বান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে উভয়ে উভয়ের সাথে অালোচনা করে ও গুরুত্ব দিয়ে সিদ্বান্ত নিতে হবে.

তিনঃ
অাপনার হাসি-কান্না,সুখ-দুঃখে তিনি যদি সমব্যথী-সতীর্থ হয় তাহলে বোঝা যাবে তিনি একজন স্বামীপরায়না স্ত্রী।

চারঃ
যদি দেখেন তিনি নিত্য নতুন বিষয় নিয়ে অাপনার সাথে কথা বলেন বিষয় খুঁজে না পেলেও বানিয়ে বানিয়ে হলেও ছুঁতো ধরে অাপনার সাথে কথা বলার উপায় খোঁজে তাহলে তিনি একজন স্বামী-অন্তপ্রাণ স্ত্রী।

পাঁচঃ
যখনই কোনও নতুন কাজ শুরু করে বা গুরুত্বপূর্ণ কোনও বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে অাপনার সাথে পরামর্শ করে তাহলে অাপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন অাপনি একজন পতিব্রতা স্ত্রী পেয়েছেন.

ছয়ঃ
যত কমদামই হোক অাপনি উনাকে কোনও উপহার দিলে তিনি দু’হাতে সে উপহার বড় মনে করে গ্রহণ করে এবং পরম উৎফুল্ল বোধ করে তাহলে অাপনি শুধু আদর্শ স্ত্রীই পাননি একজন বুদ্ধিমতী স্ত্রীও পেয়েছন.

সাতঃ
যদি তিনি সব সময় অাপনাকে ভারমুক্ত রাখতে সচেষ্ট থাকে আগ বাড়িয়ে অাপনার টুকিটাকি সহযোগিতা গুলো সম্পাদন করে তাহলে ধরেই নিতে হবে অাপনার ইহজীবনটা সুখেই কাটছে.

আটঃ
অাপনার অনুপস্থিতি যদি উনাকে উৎকণ্ঠিত করে রাখে বারবার ফোন করে মেসেজ পাঠিয়ে অাপনার খোঁজ-খবর নেয় তাহলে ধরে নিন অাপনি একজন সত্যিকারের ভালোবাসার মানুষ পেয়েছেন.

নয়ঃ
অাপনি পছন্দ করেন এমন কাজ যদি তিনি আগ বাড়িয়ে করে এবং অাপনি পছন্দ করেন না এমন কাজ যদি সযত্নে পরিহার করে চলে তাহলে অাপনি নিশ্চিত থাকেন অাপনি সুখী একটা জীবন কাটাচ্ছেন.

দশঃ
অাপনার স্বভাবের বিশেষ দোষ-ত্রুটি-খুঁত যদি উনাকে বিরক্ত না করে, রাগিয়ে না দেয় তাহলে অাপনি
সর্বকালের সেরা একজন বন্ধু পেয়ে গেছেন বলে বলা যায়.

এগারঃ
যদি তিনি অাপনার জন্যে যে কোনও ধরনের কষ্ট স্বীকার করতে সদা প্রস্তুত থাকে তাহলে সুখময় একটা জীবনই অাপনার সামনে অপেক্ষা করছে বলে বলা যায়.

বারঃ
যদি তিনি অাপনার চিন্তার জগতে আগ্রহভরে অংশগ্রহণ করে যেসব বিষয়ে অাপনার মনোযোগ তিনিও যদি তাতে আগ্রহী হয়, অাপনার শখের বিষয়গুলোর প্রতিও তিনি যত্নবান হন যদি অাপনার কল্পনাজগতের
সাথেও সে একাত্ম হয় তাহলে অাপনার চাইতে সুখী এ জগতে আর কেউ হতে পারে না।

তেরঃ
যদি তিনি অাপনার জন্য ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র কাজও লাজ-সংকোচ ছাড়া করতে পারে নিদ্বিধায় করে ফেলে তাহলে অাপনার উচিৎ আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করা।

চৌদ্দঃ
যদি তিনি অাপনাকে আল্লাহর নৈকট্য অর্জনে,ইবাদত-বন্দেগীতে,পাপ মুক্ত জীবন-যাপনে সহযোগিতা করে, উৎসাহ যোগায় তাহলে অাপনি ধরে নিন এমন কিছু পেয়ে গেছেন যা অাপনাকে দুনিয়াতেও জান্নাতী
সুখের সন্ধান দিবে,আখিরাতেও জান্নাতী জীবন লাভের নিশ্চয়তা দিবে বলে বলা যায়.

উভয়ে উভয়কে গুরুত্ব দিন,সম্মান করুন,মর্যাদা দিন। © জাফরের ওয়াল থেকে।