শনিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৮ ইং ৩রা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নির্মাণের ৩০ বছর পর রূপপুরের টাকা ফেরত নেবে রাশিয়া

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : নির্মাণের ৩০ বছর পর রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিকৃত রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের টাকার ৯০ ভাগ টাকা রাশিয়া ফেরত নেবে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

মন্ত্রী বলেন, ‘রূপপুর প্রজেক্টের ক্ষেত্রে রাশিয়ার সঙ্গে প্রথমে চুক্তি হয়েছিল যে, রাশিয়া দেবে ৮০ ভাগ এবং বাংলাদেশ দেবে ২০ ভাগ। কিন্তু পরে রাশিয়া আমাদের আগ্রহ দেখে তা ৯০-১০ ভাগে চুক্তি করেছে। এই সুযোগটা আমরা হাত ছাড়া করতে পারি না।’

বৃহস্পতিবার রাতে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ উদ্যোগে Nuclear Energy Development in Bangladesh: Opportunities and Challenges শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

বাঙ্গালি জাতি বীরের জাতি উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘বাঙ্গালিদের কাছে অসাধ্য বলে কিছুই নেই, যা প্রাচীনকাল থেকেই। একটা আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে আমাকে প্রশ্ন করা হয়েছিলো যে, আমরা একটি দরিদ্র জাতি হয়েও কিভাবে রূপপুরের মত প্রজেক্ট হাতে নিলাম। আমি উত্তরে বলেছিলাম আমরা শক্তি না থাকা সত্বেও তৎকালীন শক্তিশালী দেশ পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ করে স্বাধীন হয়েছিলাম। এটা শুনেই সেখানে বলা হয়েছিল, আর কোনো প্রশ্ন নেই। আর এটা শুনে সেখানে উপস্থিত পাকিস্তানের প্রতিনিধিরা অনেক লজ্জা পেয়েছিল, যা আমার কাছে প্রকাশ করেছে।’

ইয়াফেস ওসমান বলেন, ‘রূপপুরের পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রজেক্ট এদেশের একটি বিশাল অর্জন। সাধারণ জ্ঞানের ক্ষেত্রে এখন প্রশ্ন আসে যে, কোনো উপজেলায় প্রথম ২০ তলা ভবন নির্মিত হয়েছে? সেটা রূপপুরেই। এই প্রকল্পটি অন্য যেকোনো প্রকল্প থেকে আলাদা। এটা দেশের মান বাড়ানো ছাড়াও শ্রমের ম‚ল্যও বাড়িয়ে দেবে। স্যাটেলাইট আমাদের মর্যাদা অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। পদ্মা সেতু করার আগে আমাদেরকে অনেক অপমান করা হয়েছিল। কিন্তু এখন জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেল ও ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশে এসে এসব কাজের সুনাম করে যায়।’

আইইবি’র প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুরের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনোয়ার হোসেন, আইইবির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী খন্দকার মনজুর মোর্শেদ, বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. আলী জুলকারনাইন, ড. প্রকৌশলী মো. মঞ্জুরুল হক, আইইবি’র মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সম্পাদক আহসান বিন বাশার (রিপন), একই বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী আবদুর রাশিদ সরকার প্রমুখ।

সেমিনারে ম‚ল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পারমাণবিক প্রকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান এবং আইইবি’র মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ভাইস চেয়ারম্যান ড. প্রকৌশলী মো. শফিকুল ইসলাম।