শুক্রবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সরাইলে বিশেষ ভূমিকার জন্য ৪ যুবককে সম্মাননা ও অনুদান প্রদান

news-image

সরাইল প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের বৈশামুড়া গ্রামের সেই চারজনকে সম্মাননা স্মারক ও নগদ অর্থ দিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন।  মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) উম্মে ইসরাতের দপ্তরে জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান চাজনের হাতে সম্মাননা স্মারক ও প্রত্যেককে তিন হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করেন। এসময় সরাইল উপজেলা পরিষদের চেযরম্যান আবদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ আগস্ট দুপুরে ঢাকা থেকে সিলেটগামী এনা পরিবহনের যাত্রীবাহী বেপরোয়াগতির একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈশামুড়া এলাকায় মহাসড়কের পাশে গভীর খাদে পড়ে বাসটি পানিতে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মা-মেয়ে ও সাত মাসের একটি শিশু নিহত ও অন্তত ২০ জন যাত্রী আহত হন। ওই বাস থেকে গুরুতর আহত ১৬ জন যাত্রীকে জীবনের ঝুকি নিয়ে বৈশামুড়া গ্রামের চার ব্যক্তি উদ্ধার করেন। উদ্ধারকারী চারজন হলেন রুহুল আমীন (৫০), সেলিম মিয়া (৩২), এনামুল হক (২৪) ও বাবলু মিয়া (২৩। রুহুল আমীন ও সেলিম মিয়া পেশায় বর্গাচাষী। এনামুল লোকাল বাস চালক আর বাবলু ট্রাক চালক।
গত শনিবার (০৮-০৯-১৮) বিভিন্ন পত্রিকায় ওই চারজনকে নিয়ে ‘উদ্ধারে এগিয়ে এলেন চারজন’ শিরোনামে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর পর উপজেলা প্রশাসন তাঁদেরকে খুজে বের করেন। গতকাল মঙ্গলবার তাঁদেরকে মানবসেবায় এগিয়ে আসার জন্য সম্মাননা স্মারক ও নগদ অর্থ প্রদান করেন।
উম্মে ইসরাত বলেন, পত্রিকায় উদ্ধারকারী ওই চারজনকে নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশের পর আমরাও অনুপ্রাণিত হয়েছি। মানুষের সেবায় মানুষ নিজ থেকে যেন আগ্রহী হন, এজন্য আমরা তাঁদেরকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেছি। এতে বিপদে মানুষের পাশে পাশে এগিয়ে আসনে অনুপ্রাণিত হবে।’
রুহুল আমীন, সেলিম মিয়া, এনামুল হক ও বাবলু মিয়া সাংবাদিকদের বলেন,‘বিপদে মানুষের জন্য মানুষ। আমরা যে এমন কাজটি করতে ফারছি এই জন্য অনেক খুশি। আমরা কিছু পাওয়ার আশায় ওই দিন এই কাজ করি নাই। মানুষের জন্য কাজ করতে ফাইরা আমরা খুশি। অহন এই দান পাইয়া মানুষের পিদের সময় আরও বেশি আগাইয়া যামু। কারণ ভালো কাজের জন্য ভালো কিছু মিলে।’