রবিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ছবি কথা বলে

ম্যাচের শেষ দিকে চোট পাওয়া হাত নিয়েই তামিম ব্যাটে নামায় শ্রীলংকার আনন্দে একটু ভাটা পড়ে। মুস্তাফিজুর রান আউট হওয়ার পর বাংলাদেশের ইনিংস ২২৯ রানেই শেষ ধরে নিয়েছিল তারা। কিন্তু তামিম ব্যাটে আসায় একটা ধাক্কা খায় লংকানরা। আর তাই হয়তো এক হাতে ব্যাট করা তামিমকে উইকেটের লাইনে কিংবা ইয়র্কার না দিয়ে শরীর বরাবর বল করেন শ্রীলংকান পেসার। তামিমও এক হাতে দারুণ সামলান বলটি।

তারপর শেষ ১৬ বল থেকে মুশফিক ৩২ রান যোগ করেন। লংকান বোলারদের এক পাশ থেকেই রীতিমতো কাঁপন ধরিয়ে দেন মুশফিক। ওই সময় তার ব্যাটে যেন তামিমের শক্তিটাও ভর করে। এরপর ঘটল দারুণ এক ব্যাপার। মুশফিক আউটের পর ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে তামিমের প্রতি নিচু হয়ে সম্মান জানালেন লংকান অধিনায়ক অঞ্জেল ম্যাথুস।

তামিমকে তিনি কি বলেছিলেন তা অবশ্য জানা যায়নি। তবে একটা কথা আছে না; ‘ছবি কথা বলে’। ছবি যদি সত্যিই কথা বলে, তবে তামিম-ম্যাথুসের ছবির কথপোকথন কল্পনা করা যেতেই পারে। হয়তো লংকান অধিনায়ক কিছুটা নিচু হয়ে তামিমকে বলছেন, ‘অভিনন্দন তামিম। তুমি আজ যা করে দেখালে তা শুধু বাংলাদেশের ক্রিকেটে স্মরণীয় হয়েই থাকবে না। বিশ্ব ক্রিকেট তোমাকে মনে রাখবে।’ তামিমও পিঠ চাপড়ে দিলেন ম্যাথুসের। তার সম্মানের প্রতি দেখালেন কৃতজ্ঞতা।

সাধারণত ম্যাচের শেষে পিঠ চাপড়ে দেওয়ার বা অভিনন্দন জানানোর যে ব্যাপারটা দেখা যায়; তা বাংলাদেশের ইনিংস শেষেই যেন দেখা গেলো। শুধু বাংলাদেশি ভক্ত নয়; তামিম যে লংকানদেরও মন জয় করেছেন তা প্রকাশ পেল ম্যাথুসের মধ্য দিয়ে।

ম্যাথুস ম্যাচ শেষেও তামিমকে দিলেন কৃতিত্ব। শ্রীলংকান অধিনায়ক বলেন, ‘মুশফিক দুর্দান্ত ব্যাট করেছেন। তবে তামিম সাহসিকতার বড় পরিচয় দিয়েছেন। এক হাতে এভাবে ব্যাট করা সহজ কাজ নয়।’