বুধবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছেন ২ পুরস্কার

news-image

এবারের জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো দু’টি পুরস্কার পাচ্ছেন। মূল অধিবেশনের পাশাপাশি অংশ নেবেন ১২টি গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষ বৈঠকে। গত ১৮ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া অধিবেশনটি বাংলাদেশের জন্য তিনটি গুরুত্ব বহন করছে। বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এ সব তথ্য জানান।

মন্ত্রীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ইন্টার প্রেস সার্ভিস নিউজ এজেন্সি প্রধানমন্ত্রীকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে তার অনুকরণীয়, দূরদর্শী ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের জন্য ইন্টারন্যাশনাল এচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড দেবে। এর আগে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান ও বুট্রোস বুট্রোস ঘালি এবং ফিনল্যান্ডের রাষ্ট্রপতি মারতি আতিসারি এই সম্মাননা পেয়েছেন।

তিনি আরো জানান, গ্লোবাল হোপ কোয়ালিশন এর বোর্ড অব ডিরেক্টরসরা প্রধানমন্ত্রীকে ২০১৮ স্পেশাল রিকগনিশন ফর আউটস্ট্যান্ডিং লিডারশিপ সম্মাননা দেবেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে দূরদর্শী নেতৃত্বের জন্য আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীকে এই সম্মাননা দেয়া হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, সাধারণ অধিবেশনে রোহিঙ্গা বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ে বেশকিছু ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে যেখানে অংশগ্রহণের মাধ্যমে রোহিঙ্গা সমস্যার টেকসই সমাধানে বাংলাদেশ এ যাবত নেয়া উদ্যোগ এবং বিভিন্ন চ্যালেঞ্জগুলো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে তুলে ধরতে পারবেন।

জাতিসংঘ মহাসচিবের প্রাধিকারভুক্ত বিষয়গুলোর একটি হলো বিশ্ব শান্তি ও শান্তিরক্ষা কার্যক্রম। শান্তি বিনির্মাণ ও শান্তিরক্ষা কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষ্যে জাতিসংঘের নেয়া উদ্যোগগুলোর ধারাবাহিকতায় এবারের অধিবেশনে শান্তিরক্ষা বিষয়ে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘এছাড়া টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা সম্পর্কিত, বিশেষ করে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিষয়ে বেশকিছু উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এই বৈঠকে বাংলাদেশ অংশ নিয়ে নিজের অর্জন তুলে ধরার পাশাপাশি অন্য দেশের সাথে অভিজ্ঞতা বিনিময় ও নিজের প্রাধান্য নিশ্চিত করার সুযোগ পাবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, ‘জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের বিতর্ক পর্বে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিবারের মতো এবারও প্রধানমন্ত্রী বাংলায় বক্তৃতা দেবেন। বক্তৃতায় তিনি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে গত বছর প্রস্তাবিত ৫ দফার ধারাবাহিকতায় পুনরায় কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব তুলে ধরবেন।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জানান, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনারের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ‘হাই লেভেল ইভেন্ট অন দ্য গ্লোবাল কমপেক্ট অন রিফিউজিস : এ মডেল ফর গ্রেটার সলিডারিটি এন্ড কোঅপারেশন’ শীর্ষক বৈঠকে অংশ নেবেন। এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক বিশ্বের করণীয় সম্পর্কে আলোকপাত করবেন।

বিশ্বশান্তির অগ্রদূত নেলসন ম্যান্ডেলার জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ‘নেলসন ম্যান্ডেলা পিস সামিট : ইউএনজিএ হাই-লেভেল প্ল্যানারি অন গ্লোবাল পিস’ শীর্ষক একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকে অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই বৈঠকে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় একটি রাজনৈতিক ঘোষণা দেয়া হবে।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর আমন্ত্রণে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ‘লিডারস ডায়ালগ : টুগেদারস ফর গার্লস এডুকেশন ইন কনফ্লিক্ট-এফেক্টেড অ্যান্ড ফ্রাজিল কনটেক্সট’ শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই বৈঠকে নারী শিক্ষার প্রসারে প্রতিবন্ধকতা চিহ্নিতকরণ ও তা দূর করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করা হবে।

আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সংগঠনের আয়োজনে একটি গোলটেবিল বৈঠকে অংশ নেবেন। ওই বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ীদের কাছে বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ ও সুযোগ সুবিধার বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে।

আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) ‘সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইন দ্য ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশন’ শীর্ষক প্লেনারি বৈঠকে অংশ নেবেন।

ডব্লিউইএফ এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী চেয়ারম্যান অধ্যাপক ক্লাউস সোয়াব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘ডব্লিউইএফ সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইমপেক্ট সামিট ২০১৮’ শীর্ষক বৈঠকে কো-চেয়ার হিসেবে অংশ নেয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘হাই লেভেল ইভেন্ট অন একশন ফর পিসকিপিং’ শীর্ষক বৈঠকে অংশ নেবেন। ওই বৈঠকে বক্তব্য দেয়ার জন্য জাতিসংঘ মহাসচিব প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। শান্তিরক্ষা কার্যক্রমকে আরো কার্যকর করতে ওই বৈঠক থেকে একটি ডিক্লেয়ারেশন আসবে।

ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) এর উদ্যোগে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ‘হাই লেভেল সাইড ইভেন্ট অন দ্য রোহিঙ্গা হিউমেনিট্রেইন ক্রাইসিস’ শীর্ষক একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলিম বিশ্বের অন্য রাষ্ট্র প্রধানদের সঙ্গে অংশ নেবেন। ওই বৈঠকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মুসলমান বিশ্বের পক্ষ থেকে সম্মিলিত উদ্যোগ নেয়া হবে এবং পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী ‘হাই লেভেল ডিসকাশন অন ইকনমিক গ্রোথ থ্রো উইমেনস এমপাওয়ারম্যান্ট’ শীর্ষক একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেবেন।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের বিতর্ক পর্বে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিবারের মতো এবারও প্রধানমন্ত্রী বাংলায় বক্তৃতা দেবেন। বক্তৃতায় তিনি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে গত বছর প্রস্তাবিত ৫ দফার ধারাবাহিকতায় পুনরায় কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব তুলে ধরবেন।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৫ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক পৌঁছবেন। একাধিক মন্ত্রী, সচিবসহ ৫৫ জন প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে এবারের জাতিসংঘে অংশ নেবেন। এরই মধ্যে গত ১৮ সেপ্টেম্বর এবারের অধিবেশন শুরু হয়েছে।