রবিবার, ১৬ই জুন, ২০১৯ ইং ২রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

একজন নারী দেহরক্ষীর গোপন জীবন জানলে শিহরিত হবেন আপনিও!

news-image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের প্রথম নারী দেহরক্ষী হিসাবে কাজ শুরু করেন জ্যাকুইন ডেভিস, যিনি রাজপরিবারের সদস্য এবং অনেক বিখ্যাত ব্যক্তিদের জন্য কাজ করেছেন। তার ৩০ বছরের পেশাজীবনে অনেক জিম্মি মুক্ত করেছেন এবং গোপন নজরদারি করেছেন।

কিন্তু কেমন ছিল তার সেই জীবন?

জ্যাকুইন বলছেন, ”যখন আমি প্রথম এই পেশায় আসি, তখন এটা ছিল পুরোপুরি পুরুষ কেন্দ্রিক একটি জায়গা। তারা সবসময়ে চাইতো আমি যেন শুধু নারী বা শিশুদের বিষয়গুলো দেখভাল করি-যা ছিল খুবই অদ্ভুত। যেন তারা সবাই আমার বাবা।”

১৯৮০ সালে পুলিশ বিভাগে চাকরিতে ঢোকার কিছুদিন পরেই জ্যাকুইন বেসরকারি নিরাপত্তা খাতে চলে যাবার সিদ্ধান্ত নেন, কারণ এটা তাকে নানা ধরণের কাজের সুযোগ দেবে। পেশার কারণে তিনি বিশ্বের নামীদামী পাঁচ বা ছয় তারকা হোটেলে থেকেছেন। তিনি বলছেন, ”কিন্তু প্রতিদিনই ১২ থেকে ১৬ ঘণ্টা কাজ করার পর সেসব উপভোগের সময় থাকেনা। ” এর বাইরে একজন দেহরক্ষীকে সবচেয়ে বড় মূল্য দিতে হয় তার ব্যক্তিগত জীবনের। ”আপনি হয়তো আট-দশ সপ্তাহ বাড়িতেই যেতে পারবেন না।” যখন আগেভাগে পরিকল্পনা করে ক্লায়েন্টদের জীবনের ঝুঁকি দূর করতে হয়, তখন সেটি সিনেমা বা নাটকের চেয়েও নাটকীয় হয়ে ওঠে। অপহরণের শিকার কয়েকজন তেল কর্মীকে উদ্ধার করতে গিয়ে নজরদারির অংশ হিসাবে জ্যাকুইনকে ইরাকের রাস্তায় বোরকা পড়ে ঘুরতে হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

২-০ গোলে কলম্বিয়ার কাছে হেরে কোপা শুরু আর্জেন্টিনার

১৩ বছর বয়সে আটক মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করছে সৌদি আরব!

এই আট কারণে আপনার শুক্রাণুর সংখ্যা কমে যাওয়ার

এবারও জলজটে ডুববে ঢাকা

বাসায় আটকে দেহব্যবসা, কান্না শুনে দুই নারীকে উদ্ধার

বাবা মানে নির্ভরতার আকাশ আর নিঃসীম নিরাপত্তার চাদর: বাবা দিবস আজ

জন্মদিনে নায়কদের শুভেচ্ছা

অন্তঃসত্ত্বা অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে নিয়ে ‘তোলপাড়’

চোখের পানি ধরে রাখতে পারবেন না এই ভালোবাসার গল্পটি পড়ে

রাত ৪টা ১৫মিনিট ফজরের আজান দিচ্ছে পাশ ফিরে উঠতে যাবো, তখনই খেয়াল করলাম আমার মত একজন শুয়ে আছে…..

বোখারা শহরে এক স্বর্ণের দোকানদার ছিলো, ঘরে ছিলো তার সুন্দরী স্ত্রী। একদিন রাতে লোকটি ঘরে এসে দেখল তার স্ত্রী বসে-বসে কাঁদছে………….

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের মহৌষধ যে গাছটি, এবং এর ব্যবহার বিধি