বুধবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আসছে চিকিৎসা বীমা সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য

news-image

নিউজ ডেস্ক।। সরকারি চাকরিজীবীরা আসছে চিকিৎসা বীমার আওতায়। উন্নত বিশ্বের মতো সরকারি চাকরিজীবী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য সরকার চিকিৎসা বীমা চালুর উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে।

চিকিৎসা বীমার আওতায় কোনো সরকারি চাকরিজীবী কিংবা পরিবারের সদস্য অসুস্থ হলে তার পুরো চিকিৎসার ব্যয় বহন করা হবে। এজন্য প্রত্যেক সরকারি চাকরিজীবীর বেতন থেকে অল্প পরিমাণ অর্থ (যা এখনও নির্ধারণ হয়নি) কেটে নেয়া হবে।

সম্প্রতি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এজন্য ব্যবস্থা নিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম বলেন, চিকিৎসা বীমা নিয়ে আমাদের কাজ চলছে। এ সংক্রান্ত একটি সারসংক্ষেপ তৈরি হচ্ছে। এরপর তা অনুমোদনের জন্য অর্থমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। তিনি অনুমোদন দিলে পরে তা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে এটি কার্যকর হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠানো মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আকস্মিক দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হলে চিকিৎসার ব্যয় বহনের মতো পৃথক কোনো হাসপাতাল নেই। ফলে বাধ্য হয়েই তাদের প্রাইভেট ক্লিনিক বা হাসপাতালে নিজ খরচে চিকিৎসা নিতে হয়। এর ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে পরিবারগুলো আর্থিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। সব গ্রেডের কর্মকর্তা-কর্মচারীর চিকিৎসার জন্য মাসিক দেড় হাজার টাকা খুবই অপ্রতুল। আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে তাদের এবং পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা বীমার আওতায় আনা যেতে পারে।

চিকিৎসা বীমার রূপরেখার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এজন্য সবাইকে নির্ধারিত হারে প্রিমিয়াম দিতে হবে। এর ফলে যখন যার চিকিৎসার প্রয়োজন হবে, তখন তিনি প্রয়োজনীয় সব চিকিৎসা পাবেন। এছাড়া যার চিকিৎসার প্রয়োজন পড়বে না, তিনি ওই বীমার কোনো সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না। কিন্তু প্রিমিয়াম ঠিকই দিতে হবে। কারণ প্রিমিয়ামের টাকা বেতন থেকে কেটে নেয়া হবে।

এ প্রক্রিয়ায় একজনের টাকায় অন্যরাও চিকিৎসা পাবেন। বিশেষ করে নিম্নবিত্তদের চিকিৎসায় উচ্চবিত্তদের আর্থিক অংশগ্রহণমূলক সহায়তার বাধ্যবাধকতা থাকবে। উৎস: একুশে টেলিভিশন।