বুধবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ছোটবেলায় আমার চেয়ে আমার ব্যাট বড় ছিল!

news-image

স্পোর্টস ডেস্ক : সাক্ষাৎকার বলতে সাধারণত সবসময়ই নিজের ক্যারিয়ার, ইনিংস, সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে কথা বলেন ক্রিকেটাররা। কিন্তু এবার এসবের বাইরে এসে কথা বলেছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

রবিবার (১৪ অক্টোবর) কিশোর আলো’র জন্য চার স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীর কাছে একান্ত সাক্ষাৎকার দেন মুশফিক। আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে ক্রীড়া সাংবাদিকরা যেসব প্রশ্ন করেন তার বাইরে গিয়ে প্রশ্ন করেন খুদে ভক্তরা।

উইকেটকিপার যে একটি দলের অন্যতম ব্যাটিং স্তম্ভ হতে পারে, আধুনিক ক্রিকেটে সেটির সবচেয়ে বড় উদাহরণ অ্যাডাম গিলক্রিস্ট। আর বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় উদাহরণ মুশফিক। অবশ্য তার কিপিং নিয়ে নানা সময়ে নানা কথা হয়েছে। তবু গ্লাভসের প্রতি মুশফিকের যে
ভীষণ টান-ভালোবাসা, সেটি সব সময়ই দেখা যায়। সবশেষ এশিয়া কাপে যেমন দেখা গেল। পাঁজরে তীব্র ব্যথা নিয়েও তিনি উইকেটকিপিং করে গেলেন।

কিন্তু মুশফিক কেন উইকেটকিপিং এত ভালোবাসেন? তিনি উইকেটকিপারই–বা হয়েছেন কেন? তিনি চাইলে শুধু ব্যাটসম্যান কিংবা অলরাউন্ডারও হতে পারতেন। মুশফিকের উইকেটকিপার হওয়ার পেছনে একটা গল্প আছে। সেই গল্পটা শোনালেন শারদীয় দুপুরে, ‘যখন ছোট ছিলাম, পাড়ায় পাড়ায় খেলতে যেতাম। একবার এমন একটা খেলায় খেলতে গিয়ে জানলাম, আমাদের নিয়মিত উইকেটকিপার চোটে পড়ায় খেলতে পারবে না। তার জায়গায় কে উইকেটকিপিং করবে, এটা নিয়ে যখন সবাই চিন্তায়, তখন আমি এগিয়ে এলাম। ভাবলাম করে দেখি।
সেদিন দুটো ক্যাচ নিয়েছিলাম। ওখান থেকে উইকেটকিপিংয়ের শুরু। সেদিন উইকেটকিপিং করে খুব মজা পেলাম। ছোটবেলায় আমার চেয়ে আমার ব্যাট বড় ছিল! উইকেটকিপিংটা করতে পারতাম বলে আমাকে দলে নেয়া হতো। আর বিকেএসপিতে ভর্তি হওয়ার পর গুরুত্বের সঙ্গে
উইকেটকিপিং শুরু করি। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হলে দলে অলরাউন্ডারের ভূমিকা পালন করা যায়। দলে তাতে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এসব ভেবে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হওয়া।’