রবিবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জুভেন্টাসের মাঠে ম্যানইউ’র বাজিমাত

news-image

স্পোর্টস ডেস্ক : ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হোসে মোরিনহোর দিকে সমালোচনার তীর থামছিলই না। দিনের পর দিন ব্যর্থ হচ্ছিল দল। এতে ইংলিশ দলটির সাবেক তারকারাও মুখ খুলছিলেন। ব্রিটিশ গণমাধ্যমতো রীতিমতো যাচ্ছেতাই লিখছিল পর্তুগিজ এই কোচকে নিয়ে। বুধবার রাতে জুভেন্টাসের মাঠেও একই রকম অবস্থা সৃষ্টি হয়েছিল।

গ্যালারিতে থাকা দর্শকরাও মোরিনহোকে নিয়ে ঠাট্টা করছিলেন। তবে ২-১ এ জয়ের পর তাইতো কানে হাত দিয়ে সব সমালোচকদের দিকে ইঙ্গিত দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন তিনি এখনও ‘স্পেশাল ওয়ান’। এতে প্রথম লেগে ১-০- গোলের হারের প্রতিশোধটিও নেয়া হয়ে গেল।

চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচের দ্বিতীয় লেগে এদিন শুরু থেকেই ম্যানইউকে কোণঠাসা করে রাখে স্বাগতিকরা। একের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো-পাউলো দিবালাদের প্রতিহত করতে প্রথমার্ধের পুরোটাই ব্যস্ত থাকতে হয় রেড ডেভিলসদের রক্ষণভাগের। যদিও ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নরা কোনো সফলতা আনতে সক্ষম হয়নি।

বিরতির পর মাঠে ফিরে ফের বল দখলের লড়াইয়ের চেষ্টায় মগ্ন ছিল দুই দল। আক্রমণ চালাতে থাকে জুভিরা। ৬৫ মিনিটের মাথায় এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। তুরিনের দলটির হয়ে গোল করলেন রোনালদো। লিওনার্দো বনুচ্চির দেয়া লম্বা পাসে চমৎকার রিসিভের পর দুর্দান্ত গোল করেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী।

নির্ধারিত সময় শেষ হবার চার মিনিট আগে সফরকারীরা পেল ফ্রি-কিক। স্প্যানিশ তারকা হুয়ান মাতার চোখ ধাঁধানো শটটিতে সমতায় ফেরে ইউনাইটেড।

একেবারে শেষ দিকে আবারও হতাশ হতে হয় আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে থাকা দর্শকদের। ম্যানইউ’র অধিনায়ক আসলে ইয়ংয়ের নেয়া ফ্রি-কিক জুভিদের গোল পোস্টের সামনে চলে যায়। সাদা-কালো শিবিরের হয়ে খেলা ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার আলেকসান্দ্রোর মাথায় লেগে গোল হয়ে যায়। এতে হারের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইতালিয়ান সিরি আ’র সেরা দলটি।

এই ম্যাচটি পর ইউরোপ সেরার লিগে গ্রুপ ‘এইচ’ এর ৪ ম্যাচে ৩ জয় ও এক হারের পর ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই রয়েছে জুভেন্টাস। অন্যদিকে সমান সংখ্যক ম্যাচে ২ জয়, ১ ড্র ও ১ হারের পর ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মোরিনহোর দল।