বুধবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সমুদ্র সমান সুইমিং পুল!

news-image

সুইমিং পুল শব্দটা ক্ষেত্র বিশেষে বেশ ‘বিলাস বহুল’৷ তবে সুইমিং পুল ঠিক কেমন হয়। অনেকে বলে পুকুরের থেকেও ছোট বা অনেকে আবার বলে ছোট বাঁধানো জায়গায় জল ভরতি করে রাখা। আর এই শুনে শুনে সকলেরই কম বেশি একটি সুইমিং পুলের আকার সম্পর্কে ধারণা হয়ে গিয়েছে।

তবে আচমকা যদি গিয়ে দেখেন একটি সুইমিং পুল বিশালাকার হ্রদের সমান বা বেশ কয়েকটা ফুটবল মাঠকে ঘিরে তৈরি হয়েছে পুলটি। তাহলে নিশ্চয়ই চোখ কপালে উঠবে আপনার।

আর ঠিক এরকমই একটি সুইমিং পুলের হদিশ পাওয়া গিয়েছে। যা প্রায় একটা বিশাল লেক বা সমুদ্রের সমানও বলা চলে। একনজর দেখলে বোঝা মুশকিল। লম্বায় প্রায় ৩,৩২৩ ফুট ও গভীরতায় প্রায় সাড়ে ১১ ফুট। এক কথায় ১১ টি ফুটবল মাঠ খুব সহজে এই আয়তনে ঢুকে যাবে। আর এই পুলই বিশ্বের বৃহত্তম সুইমিং পুল হিসাবে পরিচিত। পুলটি অবস্থিত চিলির আলগারোবোয় সান আলফোন্সো দেল মার রিসোর্টে। সেখানে গেলেই দেখতে পাবেন এই বিশাল সুইমিং পুলটি।

প্রায় ১৯.৭৭ একর জমিতে তৈরি এই পুলটিতে স্কুবা ডাইভিং থেকে শুরু করে বোটিং সবই করে থাকেন রিসোর্টে আসা মানুষজন। ক্রিস্টাল লেগুনের প্রতিষ্ঠাতা তথা চেয়ারম্যান ফার্নান্দো ফিসম্যান পাঁচ বছর ধরে এই পুলটি তৈরি করেছেন। আর পুলটি তৈরি করতে খরচ পড়েছে ২ মিলিয়ন ডলার।

শুধু তাই নয়। এর বিশেষত্ব অন্য জায়গায়। সমুদ্রের পাশে পুলটি এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে যে প্রয়োজনে কম্পিউটার সিস্টেমের মাধ্যমে সমুদ্র থেকে সরাসরি জল টেনে নিতে পারবে এই পুলটি। তবে সমুদ্রের জল ফিল্টার হয়ে পাম্পের মাধ্যমে পরিস্রুত হয়ে তবেই পুলের ভেতর প্রবেশ করবে। এই পুলটিতে প্রায় ৬৬ মিলিয়ন গ্যালন জল ধরে।

স্যাটেলাইট থেকে তোলা এই পুলের ছবি দেখলে মনে হবে এটা কোনও পুল নয়। সমুদ্রের কোনও শাখা এই জলাশয়টি। এবার মনে হচ্ছে তো একবার ঢু মারতেই হবে এই পুলের উদ্দেশ্যে। তাহলে দেরি না করে যত দ্রুত সম্ভব ঘুরে আসুন এই পুলটি থেকে। সঙ্গে জমিয়ে আনন্দে কাটান এই ওয়াটারল্যান্ডকে।