বৃহস্পতিবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২: ভোটার কম থাকায় অলস সময় কাটাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

news-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের স্থগিত তিন কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। বুধবার সকাল ৮টা থেকে আশুগঞ্জ উপজেলার সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে।

সকালে ভোটের প্রথম প্রহরে ভোটারদের উপস্থিতি বেশি থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমতে থাকে ভোটারদের সংখ্যা।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে ভোটার শূন্য। এ কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ৮৪০ জন। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ১ হাজার ৩শ ভোট কাস্ট হয়েছে। ভোটার না থাকায় ভোটকেন্দ্রে অলস সময় কাটাচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বাকি দুই কেন্দ্রের চিত্রও একইরকম।

সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার শামীম ইকবাল মুন্না বলেন, ভোটের আরও সময় বাকি আছে। এ সময়ের মধ্যে ভোটার আসবেন।

এ আসনে মোট ১৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও তিন কেন্দ্রে মূলত লড়াই হচ্ছে বিএনপির প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূইয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিনের মধ্যে।

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এ আসনের ১৩২ কেন্দ্রের মধ্যে ১২৯ কেন্দ্রের ফলাফলে ধানের শীষ প্রতীকে সাত্তার পেয়েছেন ৮২ হাজার ৭২৩ ভোট আর মঈন কলার ছড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৭২ হাজার ৫৬৪ ভোট। স্থগিত কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫৭৪। মূলত এ তিন কেন্দ্রই নির্ধারণ করবে কে হাসবেন বিজয়ের হাসি।

এদিকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে তিন কেন্দ্রের প্রত্যেকটিতে ২৪ জন পুলিশ সদস্য ও ১২ জন করে আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশের ১৩টি মোবাইল ও ৭টি স্ট্রাইকিং টিম এবং র্যাব ও বিজিবির ২ প্লাটুন করে সদস্য দায়িত্ব পালন করছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্যে, অনিয়ম ও গোলযোগের কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। পরে পুনঃভোটগ্রহণের জন্য ৯ জানুয়ারি নির্ধারণ করে নির্বাচন কমিশন।