মঙ্গলবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ফ্রাইড চিকেন খেলেই বাড়ে মৃত্যুঝুঁকি!

news-image

অনলাইন ডেস্ক: ফাস্ট ফুড খেতে বেশ সুস্বাদু হলেও এটি আমাদের দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। বিশেষ করে আমাদের মস্তিষ্কের ওপর এর ক্ষতিকর প্রভাব অনেক বেশি। ফাস্টফুডের অনেক মারাত্মক প্রভাব রয়েছে। আগের অনেক গবেষণায় বলা হয়েছে, ফাস্টফুড বেশি খেলে তা বিষণ্নতা ও উদ্বেগ সৃষ্টি করে। এটি ধীরে ধীরে নষ্ট করে দেয় চিন্তা করার ক্ষমতা, স্মৃতিশক্তি ও শেখার ইচ্ছা। তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় আরো ভয়াবহ তথ্য দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাষ্ট্রের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, প্রতিদিন অন্তত একবার ফ্রাইড চিকেন খেলেই মৃত্যুঝুঁকি ১৩ শতাংশ বেড়ে যায়!

যুক্তরাষ্ট্রের মেডিক্যাল জার্নাল বিএমজে’তে প্রকাশিত ঐ গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে, যেসব নারী দিনে অন্তত একবার ফ্রাইড চিকেন কিংবা ফ্রাইড ফিস খান তাদের মৃত্যুঝুঁকি অন্য নারীদের থেকে শতকরা ১৩ ভাগ বেশি। তবে প্রধান গবেষক উল্লেখযোগ্য আরেকটি তথ্য দিয়েছেন যে, যদি পরিমিত মাত্রায় ফ্রাইড চিকেন বা ফ্রাইড ফিস খাওয়া হয় তাহলে তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারীও হতে পারে। গবেষণা দলের প্রধান ইউনিভার্সিটি অব আইওয়ার রোগবিস্তার-সংক্রান্ত বিভাগের অধ্যাপক ওয়েই বোয়া বলেন, আমরা জানি যে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বর্তমানে ফাস্টফুড খাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। তবে বেশিরভাগ মানুষই দীর্ঘমেয়াদে ফাস্টফুড খাওয়ার ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে খুব কম জানে।

এর আগে ফাস্টফুড গ্রহণ এবং ডায়াবেটিস ও হূদরোগের মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে অনেক গবেষণা হলেও ফাস্টফুড গ্রহণ এবং মৃত্যুর মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মি. ওয়েই বোয়া-ই প্রথম গবেষণা করেন। যদিও ২০১৭ সালে ফ্রাইড পটেটো এবং মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে একটি গবেষণা হয়েছিল। ঐ গবেষণায় বলা হয়েছিল, সপ্তাহে দুইবার বা ততোধিক বার ফ্রাইড পটেটো খেলে অন্যদের থেকে কম বয়সে মৃত্যুঝুঁকি বেড়ে যায়।

ওয়েই বায়োর গবেষণা দল গবেষণার জন্য ১৯৯৩ সাল থেকে ১৯৯৮ সালের মধ্যে ৫০ থেকে ৭৯ বয়সী এক লাখ ৭ হাজার নারীর খাদ্যাভ্যাস সম্পর্কে তথ্য গ্রহণ করেন। যারা অন্তত ১৮ বছর ধরে এই ধরনের খাদ্যাভ্যাস বজায় রেখেছেন তাদের ওপরই এই জরিপ পরিচালনা করা হয়েছিল। সব তথ্য পর্যালোচনা করে তারা দেখতে পান, যেসব নারী দিনে অন্তত একবার ফ্রাইড চিকেন খান তারা হূদরোগীদের থেকেও ৮ শতাংশ বেশি মৃত্যুঝুঁকিতে থাকেন। আরো নির্দিষ্ট করে তারা বলেন, যারা নিয়মিত ফ্রাইড চিকেন খান অন্যদের থেকে তাদের মৃত্যুঝুঁকি ১৩ ভাগ বেশি এবং অন্যদের থেকে হূদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ১২ ভাগ বেশি থাকে। তবে ফ্রাইড ফুড খাওয়ার সঙ্গে ক্যান্সারের কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাননি গবেষকরা। তাদের মতে, ফ্রাইড ফুডের ক্ষতিকর উপাদান এবং যে প্রক্রিয়ায় এটি ভাজা হয় তার সমন্বয়েই এই ঝুঁকি এতটা বাড়ে। এর আগে যেসব গবেষণা হয়েছে, সেখানে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে জরিপ করা হলেও এই গবেষণার ক্ষেত্রে শুধু নারীদের ওপর জরিপ করা হয়েছিল। তিনি মনে করেন, পুরুষদের ওপরও এই ধরনের জরিপের প্রয়োজন রয়েছে।

নিজের গবেষণার সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে ওয়েই বোয়া বলেন, ঐ সব ফাস্টফুড তৈরিতে কী ধরনের তেল ব্যবহার করা হয়েছিল, তাপমাত্রা কতটা ছিল অথবা কোন প্রক্রিয়ায় খাবার ভাজা হয়েছিল জরিপের তথ্য সংগ্রহের সময় সেসব তথ্য জানা সম্ভব হয়নি। তবে তিনি এই গবেষণার ফলাফলটিকে সার্বজনীন হিসেবে বলতে চাননি। তার মতে, আমেরিকাতে যে পদ্ধতিতে খাবার ভাজা হয় তা পৃথিবীর অন্যপ্রান্তে একরকম নয়। তাই সেসব জায়গায় বাস্তবতা ভিন্ন হতেও পারে।-সিএনএন