রবিবার, ২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আইপিএলের ম্যাচ বাংলাদেশে!

news-image

স্পোর্টস ডেস্ক : দেশের ক্রিকেট এখন ব্যস্ত সময় পার করছে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিপিএলকে ঘিরে। আর মাত্র তিনদিন ও ২ ম্যাচ পরই জানা যাবে, কার হাতে উঠবে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের শিরোপা। তা নিয়েই এখন দেশের ক্রিকেটপাড়ায় যত আলোচনা।

কিন্তু এরই মাঝে মঙ্গলবার বিকেল পেরিয়ে সন্ধ্যে নামার আগেই চাউর হয়ে গেল ভিন্ন একটি খবর, যা মোটামুটি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। খবরটি হলো, বাংলাদেশে হবে আসন্ন আইপিএলের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ম্যাচ।

খবরের পেছনের যুক্তিটা ফেলনা নয়। কেননা এবারের আইপিএল যখন মাঠে গড়াবে, তখন ভারতে থাকবে তাদের লোকসভা নির্বাচন। ফলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) সত্যিই কিছু ম্যাচের জন্য ভেন্যু খোঁজায় ব্যস্ত সময় পার করছে। এই যুক্তির ধার ঘেষেই প্রচারিত হয় উড়ো খবর, মুখরোচক শিরোনামে লেখা হয়-আইপিএলের এত সংখ্যক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশে।

দেশের ক্রিকেট অঙ্গন যখন ব্যস্ত বিপিএলের উন্মাদনায়, তখন এমন মুখরোচক খবরটি প্রচারিত হওয়ায় স্বভাবতই সন্দেহ জাগে এর সত্যতা নিয়ে। তাই খবরের গভীরতা নির্ণয় করতে জাগোনিউজের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ৩-৪ জন পরিচালকের সঙ্গে। তাদের প্রত্যেকেই হেসে উড়িয়ে দেন খবরটি।

বিসিবিরমিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলা হলে তিনি উল্টো প্রশ্ন করে বসেন, ‘বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে আইপিএলের ম্যাচ আমাদের এখানে আয়োজনের কোনো তদবির যদি করা হতো, তাহলে সেটা বিসিবিই তো ঢালাও করে প্রচার করতো?’

তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন, ‘বাংলাদেশে আইপিএলের কোনো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে না। এমন কোনো খবর যদি কোথাও প্রচারিত হয়ে থাকে তবে সেটার কোনো ভিত্তি নেই। পুরোটাই গুজব।’

মূলতঃ বিপিএল ফাইনাল দেখতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহরের বাংলাদেশে আসার খবরটাকে রসিয়েই প্রচার করা হয় আইপিএলের ম্যাচ হবে বাংলাদেশে। এ ব্যাপারেও পরিষ্কার ধারণা দেন জালাল ইউনুস।

তিনি জানান, ‘শশাঙ্ক মনোহর বিপিএলের ফাইনাল দেখতে আসবেন সত্যিই। তবে সেটি বিসিসিআইয়ের কোনো কর্তাব্যক্তি হিসেবে নয়। বরং আইসিসির প্রেসিডেন্ট হিসেবেই আসবেন তিনি। মূলতঃ আমাদের পাপন ভাইয়ের (বিসিসি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন) ব্যক্তিগত আমন্ত্রণেই ফাইনাল দেখতে আসবেন শশাঙ্ক মনোহর। অন্য কোনো লক্ষ্য-পরিকল্পনা নিয়ে নয়।’