শনিবার, ২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং ৯ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভারত প্রশিক্ষণ দেবে বাংলাদেশের ১৮০০ সরকারি কর্মকর্তাকে

news-image

বাংলাদেশের এক হাজার ৮০০ জন সরকারি কর্মকর্তাকে প্রশাসনের নীতিমালা এবং শাসনকাজের অন্যান্য ক্ষেত্রের সরকারি নীতি সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেবে ভারত।

শুক্রবার বাংলাদেশের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং ভারতের ‘ডিপার্টমেন্ট অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ রিফর্মস অ্যান্ড পাবলিক গ্রিয়েভ্যান্স’র (ডিএআরপিজি) অধীনস্থ ‘ন্যাশনাল সেন্টার ফর গুড গভর্ন্যান্স’র (এনসিজিজি) মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

ভারতীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এসব তথ্য জানিয়েছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম ‘দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’।

ডিএআরপিজি’র সেক্রেটারি এবং এনসিজিজি’র ডিরেক্টর জেনারেল কে ভি ইয়াপেন বলেন, এই সহযোগিতা বাংলাদেশ ও ভারতের বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের সক্ষমতা এবং প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে একটি ঐতিহাসিক মাইলস্টোন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদেরকে ই-গভর্ন্যান্স ও সার্ভিস ডেলিভারি, সরকারি নীতি ও প্রয়োগ, তথ্যপ্রযুক্তি, বিকেন্দ্রীকরণ, নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা, প্রশাসনের নীতিমালা এবং সাইটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (এসডিজি) বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জগুলো সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

ভারতীয় গণমাধ্যমটি জানায়, দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য ট্রেনিং প্রোগ্রাম সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক সই করলো এনসিজিজি। পাঁচ বছর আগে সই করা প্রথম সমঝোতা স্মারকের অধীনে বাংলাদেশের ১৫০০ সরকারি কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেয় ইনস্টিটিউশনটি।

আরও জানায়, এই ট্রেনিং প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারীদেরকে নির্বাচন করা ডেপুটি কমিশনার/অ্যাডিশনাল ডিসট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ডেপুটি ডিরেক্টর লোকাল গভর্নমেন্ট, সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি, সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার, অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার (ভূমি) এবং বাংলাদেশের সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডার থেকে মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ পাওয়া সমপর্যায়ের কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে।

গণমাধ্যমটি জানায়, এনসিজিজি চলতি বছর দুই সপ্তাহব্যাপী ১৫টি ট্রেনিং প্রোগ্রাম পরিচালনা করার কথা ভাবছে। প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তাদেরকে দিল্লিতে অবস্থিত এনসিজিজি মিউসুরি সেন্টারে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এখানে তারা ভারত সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করতে পারবেন।