সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আসামে ভেজালযুক্ত মদ পানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১৪

news-image

অনলাইন ডেস্ক : ভারতে আসামে ভেজালযুক্ত মদ পানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১৪ জনে দাঁড়িয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন আরও শতাধিক মানুষ। ইতিমধ্যেই নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে ১ হাজার ৫০০ লিটার দেশি মদ।

আসামের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা জানান, প্রতি ১০ মিনিট পর পরই তারা নতুন নতুন জায়গা থেকে মৃত্যুর খবর পাচ্ছেন।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সার্ববানান্দ সোনাওয়াল ‘অবৈধ মদ বিক্রির সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা নিশ্চিত’ এবং ‘দোষীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। বিষাক্ত মদপানে নিহত প্রত্যেককে দুই লাখ এবং আহতদের চিকিত্সার ৫০ হাজার টাকা অনুদানের ঘোষণা দেন।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার গুয়াহাটি থেকে ৩১০ কিলোমিটার দূরে গোলাঘাটের চা বাগানে এ ঘটনা ঘটে। শতাধিক শ্রমিক সাপ্তাহিক বেতন পাওয়ার পর স্থানীয়ভাবে তৈরি দেশি মদ ‘হোচ’ পানে অসুস্থ হয়ে পড়েন। নিহতদের মধ্যে অন্তত নয়জন নারী শ্রমিক ছিলেন।

ওই ঘটনার পর চা বাগানটির নিকটবর্তী জুগিবাড়ি এলাকার ওই অবৈধ মদ প্রস্তুতকারক ফ্যাক্টরির দুই মালিকদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের নাম-ইন্দুকল্প বোরদোলাই ও দেবা বোরা বলে জানা গেছে।

এদিকে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে আরও কয়েকজনকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। গোলাঘাট সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক দিলীপ রাজবংশী বলেন, ‘ভেজাল দেশি মদ’ খাওয়ার কারণেই শ্রমিকদের মৃত্যু হয়েছে।

গত মাসে বিষ মদ খেয়ে উত্তরপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডে মারা গিয়েছিল ১০০ জনের বেশি মানুষ। তার দু’সপ্তাহের মধ্যেই ফের আসামে ঘটল এ ঘটনা।

এ জাতীয় আরও খবর

চু’রি করতে এসে ভাত রান্না করে খেয়েছে চোর!

অন্ধকার ঘরে ২৫ বছর ধরে শিকলবন্দী রতন

যৌ’নপল্লীতে প্রভা-মৌটুসী!

মেডিকেল শিক্ষার্থীর প্রেমের ফাঁদে পোল্যান্ড প্রবাসী, খুইয়েছেন ১০ লাখ

মাত্র ২২ সেকেন্ডে মোটরসাইকেল চু’রি!

অসাধারণ এক স্ন্যাপশট, চিত্রগ্রাহকের সময় লেগেছে ২ ঘণ্টা

মায়ের দ্বিতীয় স্বামীর সঙ্গে পালালো মেয়ে!

মোহাম্মদপুরে আল্লাহর ৯৯ নাম সংবলিত স্তম্ভ নির্মাণ

প’তিতাবৃত্তিতে রাজি না হওয়ায় মেয়েকে নির্দয়ভাবে মারল বাবা!

শিক্ষার্থীদের সামনেই হাতুড়ি দিয়ে মোবাইল ফোন ভাঙলেন অধ্যক্ষ!

নকিয়া-স্যামসাং মোবাইল কম দামে বিক্রি করছে ২ চীনা নারী

এরা শোভন-রাব্বানীর চেয়েও খারাপ: শেখ হাসিনা