বৃহস্পতিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

একটি লিভার দিয়ে বাবাকে বাঁচালেন মেয়ে

news-image

অনলাইন ডেস্ক : ভারতের হায়দারাবাদে অসুস্থ বাবাকে বাঁচালেন ১৯ বছরের মেয়ে। বাবার জীবন বাঁচাতে জীবনের ঝুঁকি থাকার পরেও নিজের একটি লিভার দিলেন বাবাকে। মেয়েরা নাকি বাবাকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন! এই প্রচলিত কথাকেই যেন সত্য প্রমাণ করলেন মেয়ে রাখী দত্ত।

রাখীর পিতার বয়স ৬৫ বছর, কিছুদিন ধরেই পেটে ব্যথা এবং কিছু খেতে পারতেন না। হাসপাতালে ভর্তির করার পর জানাতে পারলেন তার বাবা লিভারের কঠিন রোগে আক্রান্ত। আর তাকে সুস্থ করেতে হলে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে। কিন্তু কে দান করবে সেই লিভার?

এমন প্রশ্ন যখন সবার মনে ঘুরছিলো, ঠিক সেই সময়েই কোনো চিন্তা না করে রাখী দত্ত এগিয়ে এলেন নিজের বাবার জন্য।

এ বিষয়ে রাখী বলেন, ‘বাবার জন্য তিনি নিজের লিভারের অংশবিশেষ দান করতে প্রস্তুত! অবশেষে সেই সাহসী মেয়ের কারণেই নতুন জীবন পেলেন বাবা! জানুন রোমাঞ্চকর সেই গল্প।’

রাখী আরো জনান, বাবার এমন কঠিন রোগ হয়েছে শুনে প্রথমে ভেঙে পড়েছিলেন। তারপর ঠাণ্ডা মাথায় পুরো ব্যাপারটা ভেবে দেখেন। তার জীবনে বাবার প্রয়োজন আছে। বাবাকে অনেক ভালোবাসেন। তাই সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেননি।

নিজের জীবনের ঝুঁকি আছে জেনেও বাবার জীবন বাঁচাতে নিজের লিভারের ৬৫% দান করতে এক কথায় রাজী হয়ে যান।

তারপর অস্ত্রোপচারের জন্য হায়দ্রাবাদের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব গ্যাস্ট্রোএন্টারোলোজি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় রাখীর বাবাকে। একই সাথে কলকাতা থেকে দুজন লিভার ট্রান্সপ্লান্ট বিশেষজ্ঞ সেখানে উপস্থিত হয়ে এই জটিল অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন করেন।

এরপর ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে ওঠেন রাখীর বাবা। পেটে অপারেশনের গভীর চিহ্ণসহ বাবা-মেয়ের ছবি এখন সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল।

এ জাতীয় আরও খবর