শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিশ্বকাপের আগে ‘মধুর সমস্যায়’ বাংলাদেশ

news-image

সপ্তাহ খানেক পরেই শুরু হবে বিশ্বকাপের দামামা। ওয়ার্মআপ ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এই বিশ্বকাপের লড়াই। ৩০’মে থেকে মূল পর্বের লড়াই। এর আগেই বাংলাদেশ পড়েছে এক মধুর সমস্যায়। বিশ্বকাপের স্কোয়াড থেকে শুরু করে ওপেনিংয়ে কে নামবেন- এমন মধুর সমস্যা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টকে।

ত্রিদেশীয় সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম্যানেস করেছেন মাশরাফি-সাকিবরা। এক কথায় বাংলাদেশ দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে। টাইগাররা দুইবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও একবার আয়ারল্যান্ডকে উড়িয়ে এই সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করে। ব্যাটে বলে সবাই দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করেছেন।

প্রথমে বলতেই হবে ওপেনিংয়ের কথা। একপ্রান্তে তামিমের জায়গা পাকাপোক্ত। অন্য-প্রান্ত নিয়ে দিশেহারা ছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে ত্রিদেশীয় সিরিজের কথা বিবেচনায় এনে স্বস্তিতে থাকতে পারেন নির্বাচকরা। তামিমের সঙ্গে উইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচে সৌম সরকার খেলেছেন অসাধারণ। দুই ম্যাচেই করেছেন অর্ধশতক (৫৪, ৭৩)।

সমস্যা অন্য জায়গায়। আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলায় আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপপর্বের শেষ হয়ে দাঁড়ায় নিয়মরক্ষার ম্যাচে। এই ম্যাচে বাংলাদেশ নামে চার পরিবর্তন নিয়ে। ওপেনিংয়ে সৌম্যর জায়গায় আসেন লিটন দাস। মাঠে নেমেই লিটনও খেলেন অনবদ্য এক ইনিংস। গতকাল লিটন-তামিমের শুরুর উপর ভিত্তি করেই বড় রানের টার্গেট অনায়াসেই টপকানো সম্ভব হয়। লিটনের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৭৬ রান।

এখন তামিমের সঙ্গে ওপেনিংয়ে কে নামবেন? লিটন নাকি সৌম্য? এই দুজনের পারফর্মেন্স টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনাকে বাড়িয়ে দিচ্ছে কয়েকগুণ। অন্যদিকে আরেকটি সমস্যা অপেক্ষা করছে টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে কে থাকবেন, তাসকিন নাকি রাহী? প্রধান নির্বাচক বলেছিলেন রাহীর জায়গায় তাসকিন থাকবেন স্কোয়াডে, রাহী থাকবেন ষোলোতম সদস্য হিসেবে।

অন্যদিকে বিবিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ত্রিদেশীয় সিরিজের পরই আসবে সিদ্ধান্ত। এখন গতকাল রাহী আইরিশদের বিপক্ষে ক্যারিয়ার সেরা পাঁচ উইকেট নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের কাজটাকে বেশ কঠোর করে দিয়েছেন।

২৩ তারিখ পর্যন্ত বিশ্বকাপের স্কোয়াড পরিবর্তন করা যাবে। এখন তাসকিনকে নেওয়া হবে নাকি রাহীই থাকবেন তা সিদ্ধান্ত নিতে হবে দ্রুতই। নির্বাচকদের জন্য আরও একটি স্বস্তি মোস্তাফিজুরের ফর্মে ফেরা। উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে বেধড়ক পিটুনি খাওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে এসেই নিয়েছেন চার উইকেট।

তবে এখন বাংলাদেশের নজর ফাইনালের দিকে। এর এগে দ্বিপক্ষীয় সিরিজের বাইরে কখনো টাইগাররা ট্রফি জেতেননি। এটাই হতে পারে ট্রফি জয়ের সবচেয়ে বড় সুযোগ। এমন একটা ট্রফি ঘরে এলে নিঃসন্দেহে বিশ্বকাপে শতভাগ আত্মবিশ্বাস নিয়েই খেলতে পারবে বাংলাদেশ।

এ জাতীয় আরও খবর