শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৯ ঘণ্টাব্যাপী ফজরের আজান হয় পৃথিবীতে

news-image

ইসলাম ডেস্ক।। আজান নামাজের জন্য ডাক দিয়ে যায়। মহাকল্যাণের হাতছানি দেয়। আজান নব উদ্যমে জাগরণের প্রতীক। ফজরের আজানের আওয়াজে পৃথিবীর ঘুম ভাঙে। কোনো কোনো গবেষণা বলছে, পৃথিবীর কোনো না কোনো প্রান্তে সব সময় আজান হয়। লিখেছেন আতাউর রহমান খসরু ও মুফতি মুহাম্মদ মর্তুজা।

ফজরের পবিত্র আজানের ধ্বনিতে ঘুম ভাঙে মুসলমানের। তাওহিদ ও রিসালাতের সাক্ষ্য, নামাজ ও কল্যাণের আহ্বানে দিন শুরু হয় তাদের। ঘোষণা করা হয়, হে মানব! ওঠো, ঘুমের চেয়ে নামাজ উত্তম। শুধু স্রষ্টার ইবাদত নয়, জাগতিক অনেক বিচারেও ফজরের আজানের এই আহ্বান কল্যাণের বাহক। আধুনিক যুগের চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা সকালের নির্মল বায়ু, সূর্যালোক ও কায়িক পরিশ্রমকে স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী বলে মত দিয়েছেন। একই সঙ্গে সূর্যালোক ব্যবহার নিশ্চিত করতে কর্মঘণ্টা এগিয়ে নেওয়ার মতও দিয়েছেন অনেক বিশেষজ্ঞ। আর এর সবই সম্ভব হবে, যদি ফজরের আজানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে মানুষ সূর্য জেগে ওঠার আগে জেগে ওঠে।

আজান কল্যাণের পথে আহ্বান করে, আজান কল্যাণের ধারক। আর সেই কল্যাণের ধারা পৃথিবীব্যাপী অব্যাহত থাকে দীর্ঘ ৯ ঘণ্টা। এটা মুসলিম বিশ্বের হিসাবে। আর যদি পৃথিবীর পূর্ব ও পশ্চিমের শেষ শহর হিসাব করা হয় তাহলে ফজরের আজানের দৈর্ঘ্য হবে আরো বেশি।

মুসলিম বিশ্বের সর্বপূর্বের শহর ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়াসি এবং সর্বপশ্চিমের শহর মৌরিতানিয়ার নাওজিবো। গ্রিনিচ মান সময়ের হিসাবে উভয় দেশের মধ্যে সময়ের পার্থক্য ৯ ঘণ্টা। অর্থাৎ ইন্দোনেশিয়ায় ফজরের আজান শুরু হওয়ার ৯ ঘণ্টা পর আজান হয় আফ্রিকার দেশ মৌরিতানিয়ায়। ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়াসি দ্বীপে আজান শুরু হওয়ার পর তা ক্রমেই পশ্চিমের দিকে অগ্রসর হয়। অগ্রসরমাণ আজানের ধ্বনি প্রায় অবিচ্ছিন্নভাবেই অগ্রসর হতে থাকে।

আজানের ধ্বনি পূর্ব থেকে পশ্চিমে অগ্রসর হওয়ার ধারাক্রমটি এমন—ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইরান, ইরাক, সৌদি আরব, মিসর, লিবিয়া, আলজেরিয়া, মালি, মৌরিতানিয়া। তবে তারও আগে আজান হয় জাপানের নিমুরো দ্বীপে। সেখানে ফজরের আজান হয় রাত ১টা ৫৭ মিনিটে (১২ মে)। আর সর্বশেষ আজান হয় আমেরিকার আলাস্কা প্রদেশের শেষ প্রান্তে। জাপানের নিমুরো দ্বীপে মুসলিম কমিউনিটির ছোট একটি মসজিদের সন্ধান পাওয়া গেলেও আলাস্কা প্রদেশের শেষ প্রান্তে ঠিক কোথায় মসজিদ রয়েছে তা নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। শুধু ফজর নয়, পৃথিবীতে প্রতিদিন প্রতি ওয়াক্ত নামাজের আজান হয় ৯ ঘণ্টা ধরে। উৎস: কালের কণ্ঠ।

এ জাতীয় আরও খবর

এবার মিন্নির পক্ষে ১৫০ আইনজীবী

‘জমি দখলের জেরে স্থানীয় হিন্দু-মুসলমানদের হয়রানি করেন প্রিয়া’

একাধিক পুরুষের সঙ্গে প’রকীয়া: কসাই ডেকে স্ত্রীকে জ’বাই করলেন স্বামী

ভারতীয় গণমাধ্যম যেভাবে দেখছে পিয়া সাহার অভিযোগ

আমরা কেমন দল ‘টি-টোয়েন্টি’ বিশ্বকাপে দেখাব: রশিদ খান

ইউএনও নিজেই বানভাসি!

অজ্ঞান করে ৫ বছরের শিশু নিয়ে পালানোর সময় নারী আটক

আইসিইউতে ভর্তি শিক্ষামন্ত্রীর স্বামী

তুরস্কে শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী হলেন বাংলাদেশের রাশেদ

অবসর নয়, আর্মিতে যোগ দিতে দল ছাড়লেন ধোনি

ইংল্যান্ড অধিনায়কও বললেন ফাইনালের ফল ‘ন্যায্য হয়নি’

মসজিদ থেকে রিয়েলভর্তি ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে গেলেন হজ কর্মকর্তা