শনিবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রং নাম্বারের ফোনে নারীর ফাঁদে প্রবাসী, উদ্ধার হলেন যেভাবে

news-image

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় দুই নারীসহ ছয় অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সাথে অপহৃত কুয়েত প্রবাসী এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গিরিধারা মাদরাসা রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেফতারকৃত ছয় আসামি হল, গিরিধারা মাদরাসা রোড এলাকার হাজী নুরুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত মুনছুর আলীর দুই ছেলে রাজু (৩৬) ও বাদশা (৩৮), একই এলাকার মৃত ওয়াজেদ আলীর ছেলে মো: খাইরুল ইসলাম (৩৭), মোহাম্মদ আলীর মেয়ে লিপি (৩০), বিরণ চন্দ্র দাসের মেয়ে রিনা (২৭) এবং ডেমরার ছাগলপট্টি এলাকার মৃত ইসমাইল কবিরাজের ছেলে মো: মাহাবুব (৩৫)।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার হওয়ার পর এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী কুয়েত প্রবাসী আবুল কালাম। তিনি কুমিল্লার দাউদকান্দি থানার হাসনাবাদ কান্দারগাঁও গ্রামের মৃত সামাদ বেপারীর ছেলে।

অভিযান পরিচালনাকারী ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ছাইদুল ইসলাম জানান, ‘ভিকটিম আবুল কালাম একজন কুয়েত প্রবাসী। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার হাসনাবাদ কান্দারগাঁও এলাকায়। বর্তমানে তিনি ছুটিতে দেশে অবস্থান করছেন। বেশ কিছুদিন আগে মোবাইলে রং নাম্বারের মাধ্যমে আসামি রিনার সাথে তার পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে কথাবার্তা চলতে থাকার একপর্যায়ে রিনা তার স্বামীকে বিদেশে পাঠানোর প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাব অনুযায়ী বিদেশে পাঠানোর আনুসঙ্গিক কার্যক্রম এবং আলোচনা করার কথা বলে রোববার বিকেলে আসামি রিনা ভিকটিম আবুল কালামকে ফোন করে তাদের বাসায় আসতে বলেন। আবুল কালাম রোববার বিকেলে আসামি রিনাদের বাসায় যাওয়ামাত্রই রিনার সহযোগী অন্য আসামিরা তাকে জোরপূর্বক আটকে ফেলে এবং তার মোবাইল ও টাকা-পয়সা কেড়ে নেয়। অতঃপর আসামিরা ভিকটিম আবুল কালামকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। ভিকটিম টাকা জোগাড় করার কথা বলে কৌশলে তার বন্ধু আরমানকে বিষয়টি জানালে আরমান পুলিশে খবর দেয়। সংবাদ পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে দ্রুত গিরিধারা মাদরাসা রোড এলাকার হাজী নুরুল ইসলামের বাড়ির ৭ম তলার একটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালাই। অভিযানে আসামিদের গ্রেফতার করাসহ ভিকটিম আবুল কালামকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হই।’