মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং ২৮শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রাথমিকে বায়োমেট্রিক হাজিরা: ১৫ হাজার টাকার মেশিন কিনতে বিল ৩০ হাজার!

news-image

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে কর্মরত শিক্ষকদের বায়োমেট্রিক হাজিরা মেশিন ক্রয়ের নামে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়ার পায়তারা চলছে। মেশিন ক্রয়ের জন্য জেলা শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা অফিসারদের স্বমন্বয়ে ক্রয় কমিটিও গঠন করা হয়। কিন্তু প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে চলতি বছরের ৩০ জুনের মধ্যে এ মেশিন কেনার কথা থাকলেও তা করা হয়নি।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮/১৯ অর্থ বছরে স্কুল লেভের ইমপ্রুভমেন্ট প্ল্যান (স্লিপ) এর আওতায় প্রতিটি বিদ্যালয়ে ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা করের উপজেরার ১৭৭টি বিদ্যালয়ে জন্য ১ কোটি ৯৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। বরাদ্দকৃত টাকা বিদ্যালয়ের ব্যাংক অ্যাকাউন্টেও জমা হয়েছে।

এ বরাদ্দ থেকে প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য বায়োমেট্রিক হাজিরা মেশিন ক্রয়ের নির্দেশনা দেওয়া হয়। মেশিন কিনতে ১০-১৫ হাজার টাকার খরচ হলেও প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় থেকে প্রতিটি বিদ্যালয় থেকে মেশিন ক্রয় বাবদ ৩০ হাজার জমা দিতে বলা হয়েছে। এদিকে ময়মনসিংহ জেলা ও গৌরীপুর উপজেলা শহরের ইলেকট্রনিক্সের দোকানে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে বায়োমেট্রিক মেশিনের মূল্য সর্বনিন্ম ৬হাজার ৫শ টাকা, মাঝারিটা ৮হাজার টাকা ও সর্বোচ্চটার মূল্য ১৪ থেকে ১৫ হাজার টাকা।

চান্দের সাটিয়া বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসরিন বিনতে সুলতানা বলেন, শিক্ষা অফিস থেকে বায়োমেট্রিক মেশিন ক্রয়ের জন্য স্লিপ এর টাকা থেকে ৩০ হাজার হাজার টাকা চাওয়া হয়েছে। আমরা ব্যাংকে টাকা রেখে দিয়েছি। তবে শোনেছি বাজারে এর চেয়ে কম মূল্যে মেশিন পাওয়া যায়। জাগরণী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমার বিদ্যালয়ের বরাদ্দকৃত টাকায় আমরা সিদ্ধান্ত নিবো কোথায় থেকে মেশিন কিনবো। শিক্ষা অফিসে এক টাকাও দেয়া হবে না।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম খান জানান, জেলা শিক্ষা অফিসারকে সভাপতি ও সকল উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে সদস্য করে ক্রয় কমিটি করা হয়েছিলো। এখন যেহেতু বায়োমেট্রিক মেশিন নিয়ে নানা কথা চলছে, তাই কে ক্রয় করবে সেটা এই মুর্হূতে বলতে পারছি না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন খান বলেন, জেলা কমিটি যে প্রক্রিয়ায় বায়োমেট্রিক মেশিন ক্রয় করার চেষ্টা করছে সেটা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। বিদ্যালয়ের বরাদ্দকৃত টাকায় ম্যানেজিং কমিটিই মেশিন ক্রয় করবে।

এ জাতীয় আরও খবর

কসবায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষ ১৫ জন নিহত : তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি

কসবায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ১২ 

সরাইলে ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দে কর্মসৃজন কর্মসূচির উদ্বোধন

সরকার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে : মো. মামুনুর রশিদ ডিসি

আরও ১১ টিভি সম্প্রচারের অপেক্ষায়

হোপ হাসপাতালের ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠন

অবশেষে রাজনের কারামুক্তি

নিজে নিজে পড়তে হবে, প্রাইভেট-কোচিং নয় : জাফর ইকবাল

বাঞ্ছারামপুরে পরকীয়ার বলি স্বামীকে হত্যা

‘বিএনপি-জামাত ক্ষমতার সময় বাংলাদেশ ছিল মিসকিনের দেশ’

বুলবুল তাণ্ডবে ট্রলারডুবি, নিখোঁজ ৯ জেলের লাশ উদ্ধার

তুরিন আফরোজ বললেন, আমি মুখ খুললে ট্রাইব্যুনালের অনেক কিছুই প্রশ্নবিদ্ধ হবে