শনিবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যৌ’ন উত্তেজক ট্যাবলেটের কথা বলেকীটনাশক খাইয়ে স্বামীকে হ’ত্যা

news-image

কুমিল্লার মুরাদনগরে মেহেদির রঙ না শুকাতেই বিয়ের ২৫দিনের মাথায় পরকীয়ার টানে স্বামীকে বি’ষ খাইয়ে হ ‘ত্যা করেছে নববধূ একা রানী দাস। মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজেলার ছালিয়াকান্দি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নি হত অনিক লাল দাস (২৩) কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার মোহনপুর গ্রামের মানিক লাল দাসের ছেলে। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে নিহতের পিতা বাদী হয়ে পুত্রবধূ একা রানী দাস, পিতা নরেশ চন্দ্র দাস ও প’রকীয়া প্রেমিক টিটু দাসসহ তিনজনের বি’রুদ্ধে মুরাদনগর থানায় একটি হ ত্যা মামলা দায়ের করেছে। গতকাল বুধবারপুলিশ ঘা’তক একা রানী দাসকে গ্রেফতার করে প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হ ‘ত্যার দায় স্বীকার করে।

মামলাসূত্রে জানা যায়, গত ২৫ দিন পূর্বে মুরাদনগর উপজেলার ছালিয়াকান্দি গ্রামের নরেশ চন্দ্র দাসের মেয়ে একা রানী দাসের সাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে হয় চান্দিনা উপজেলার মোহনপুর গ্রামের মানিক লাল দাসের ছেলে অনিক লাল দাসের সাথে। কিন্তু একা রানী দাস মোবাইল ফোনের মাধ্যমে টিটু দাস নামের এক যুবকের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। স্বামীর বাড়িতে থেকেও সেই প্রেমিক টিটু দাসের সাথে নিয়মিত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে আসছিল। এরই মধ্যে একা রানী দাস ও টিটু দাস মিলে মোবাইল ফোনে স্বামী অনিক লাল দাসকে হ ত্যার পরিকল্পনা করে। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মঙ্গলবার যৌ’ন উত্তেজক ট্যাবলেটের কথা বলে একটি কীটনাশক ট্যাবলেট খাইয়ে দেয় স্বামী অনিক লাল দাসকে। পরে অনিক লাল মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট শুরু করলে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে রায়পুর একটি হসপিটালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মনজুর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, নি হতের পিতা মানিক লাল দাসের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘাতক একা রানী দাসকে আটক করে কুমিল্লার বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।