বৃহস্পতিবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আল্লাহতায়ালা তাদের বুঝ দিয়েছেন, এজন্য আমি খুশি : বুয়েট ভিসি

news-image

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার হত্যার ঘটনায় কয়েক দিন ধরে চলমান আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছিল। কিন্তু আজ রোববার ও আগামীকাল সোমবারের জন্য আন্দোলন স্থগিত করায় সেই সংশয় কেটে গেছে।

তবে ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন বুয়েটের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম।

ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ভিসি বলেন, ‘আমাদের অন্যান্যবারের মতোই কিন্তু প্রস্তুতি। আমাদের আজকে যে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন, এ আয়োজন করার পেছনে যে অসুবিধাগুলা ছিল, সে অসুবিধা দূর করার ব্যাপারে আমাদের শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা উপমন্ত্রীর অবদান অনেক। তবে প্রধানমন্ত্রী সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছেন আমাদের এসব কিছু উত্তরণ করার জন্যে।’

পরীক্ষার্থীদের কষ্ট লাঘবের চেষ্টা করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আজকে মূল জিনিসটা হচ্ছে পরীক্ষা নেওয়া। এতজন ছাত্র আসবে দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে। তারা এসে যেন কষ্ট না পায় এবং পরীক্ষা দিয়ে যেন যেতে পারে তার জন্য আমরা চেষ্টা করেছি।’

আন্দোলন স্থগিত করায় শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ জানান ভিসি। তিনি বলেন, ‘আমাদের ছাত্র ভাইদেরও ধন্যবাদ জানাই। তারা যে অবুঝের মতো ছিল তারপরও যে বুঝেছে-এটা আমাদের একটা প্রেস্টিজের ব্যাপার। আমরা এই ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করে পরীক্ষা নিতে পারছি আজকে তাদের সহযোগিতায়।’

যোগ্যতা অনুযায়ী ভর্তি পরীক্ষার জন্য অনলাইনে আবেদন জমা পড়েছিল ১৬ হাজার ২৬৮। এর মধ্যে ১২ হাজার ১৬১ জনকে বাছাই করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘তারা প্রথমে রাজি ছিল না। তারপরও তার বুঝতে পেরেছে। এজন্য তাদের অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। তাদের আল্লাহতায়ালা বুঝ দিয়েছেন, এজন্য আমি খুশি এবং তাদের প্রতি আমার অনেক অনেক স্নেহ ও মমতা রইল।’

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার পরও আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তাদের ক্লাসে ও পরীক্ষায় ফেরানোর জন্য কিছু করছেন কিনা জানতে চাইলে ভিসি বলেন, ‘আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলব। ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে এই মুহূর্তে আমরা কনসেনট্রেট করছি। আমরা এটা (পরীক্ষা) শেষ করে নেই। কারণ আমাদের অনেক বড় কাজ। এরপর খাতা দেখার কাজ। সবগুলো কাজেই আশা করি তারা সহযোগিতা করবে।’

প্রসঙ্গত, গত রোববার রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এরপর থেকে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা ১০ দফা দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে।

শেষ পর্যন্ত তাদের আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে অবৈধভাবে থাকা শিক্ষার্থীদের হলত্যাগ এবং ছাত্র রাজনীতি বন্ধসহ পাঁচ দফা দাবি মেনে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে এ সংক্রান্ত নোটিশও জারি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে ১৯ জনকে আসামি করে তার বাবা বরকত উল্লাহ ঢাকার চকবাজার থানায় মামলা করেন। এখন পর্যন্ত এ মামলায় ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করছে ডিবি।