শুক্রবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিপ্লবের ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছিল : তদন্ত প্রতিবেদন

news-image

ভোলা প্রতিনিধি : ভোলার বোরহানউদ্দিনে সংঘাতের ঘটনায় আলোচিত বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্যের (শুভ) ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছিল। পরিকল্পিতভাবে একটি চক্র এ ঘটনা ঘটিয়েছে। জামায়াত-শিবিরসহ কিছু দুস্কৃতকারী এর সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছে এ ঘটনা তদন্তে গঠিত জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি।

তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান স্থানীয় সরকার বিভাগ ভোলার উপপরিচালক মামুদুর রহমান গতকাল শনিবার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিকের কাছে ১৫ পৃষ্ঠার এ প্রতিবেদন জমা দেন। এসব ঘটনায় সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য বেশিকিছু সুপারিশও করা হয়েছে। মসজিদ, সমাবেশ, সামাজিক গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রচার বাড়ানোতে সুপারিশ করা হয়।

ভোলার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, ঘটনার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তদন্ত করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পরই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়েছি। এখন প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ব্যবস্থা নেবে।

তদন্ত কমিটির প্রধান মাহমুদুর রহমান বলেন, কমিটির সদস্যরা সরেজমিন পরিদর্শন, ভিডিও ফুটেজ ও গণমাধ্যমের প্রচারিত তথ্য পর্যালোচনা, প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষাৎকার ও জবানবন্দির ভিত্তিতে ১৫ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়। তদন্তে পাওয়া সব তথ্যই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গত রোববার ভোলার বোরহানউদ্দিনে বিপ্লব চন্দ্রের বিচার দাবিতে ‘তৌহিদি জনতা’র ব্যানারে বিক্ষোভ থেকে পুলিশের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষ বাধে। এতে চারজন নিহত হন। আহত হন পুলিশসহ দেড় শতাধিক মানুষ। এর আগে গত শুক্রবার ভোলা সরকারি কলেজের ছাত্র বিপ্লব চন্দ্রের নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবী (সা.) সম্পর্কে কটূক্তি করে কয়েকজনের মেসেঞ্জারে বার্তা পাঠানো হয়। কয়েকজন এই বার্তার স্ট্ক্রিনশট নিয়ে ফেসবুকে দেয়। একপর্যায়ে সেটি ছড়িয়ে পড়ে এবং বিপ্লব চন্দ্রের শাস্তির দাবি ওঠে। বিভিন্ন মসজিদ থেকে কয়েক দফা বিক্ষোভও দেখানো হয়।

ঘটনার পরদিন বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী ভোলার ডিডিএলজি মাহমুদুর রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন ভোলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি ও শিক্ষা) আতাহার মিয়া এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মহসিন আল ফারুক।

বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি: পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় প্রশাসনকে দায়ী করে বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছে ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদ’। গতকাল রাতে সংগঠনটির মুখপাত্র ও যুগ্ম সদস্য সচিব মাওলানা মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- সরকারের কাছে ‘বিপ্লব চন্দ্র শুভর’ ঘটনা এবং সংঘর্ষের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানাচ্ছি। বোরহানউদ্দিনে সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি ও মন্দিরে হামলার ঘটনা সাজানো বলেও বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়।