শুক্রবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নারীরা ব্যাংক ঋণ পরিশোধে এগিয়ে : বাণিজ্যমন্ত্রী

news-image

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ব্যাংকের ঋণ পরিশোধে পুরুষদের চেয়ে আমাদের নারীরা এগিয়ে। তাদের মধ্যে সততা, কর্তব্যনিষ্ঠা ও ব্যবসায়ী মনোভাব সব সময় বিদ্যমান থাকে। কাজেই নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ দিলে তা অনাদায়ী হওয়ার আশঙ্কা কম থাকে।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) বিকেলে নগরের পলোগ্রাউন্ড মাঠে চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যানড্ ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত মাসব্যাপী ১৩তম ইন্টারন্যাশনাল উইম্যানস এসএমই এক্সপো বাংলাদেশের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছেন। এসএমই খাতকে এগিয়ে নিতে সরকার কাজ করছেন। এ দেশ সবার। সবাই মিলে এগিয়ে যেতে হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ বানাতে প্রধানমন্ত্রী কাজ করে যাচ্ছেন। অসামম্প্রদায়িক দেশ গড়তে নারী পুরুষ সবাইকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, বিমানবন্দর থেকে এ পর্যন্ত নারী উদ্যোক্তারা যোগ্যতার প্রমাণ দেখিয়েছেন। বাণিজ্যে বসতি লক্ষ্মী। এ বাণিজ্যে যখন নারীরা এসেছেন আমরা এগিয়ে যাবোই। এ দেশের নারীরা অনেক এগিয়েছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জিডিপি ধারাবাহিকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগামী বছরগুলোতে আমাদের জিডিপি ১০ শতাংশের উপরে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে মাথাপিছু আয় ৬ হাজার ডলার করার পরিকল্পনা রয়েছে। এসব লক্ষ্য বাস্তবায়নে নারী উদ্যোক্তাদেরও এগিয়ে আসতে হবে। পণ্য বহুমুখীকরণসহ দেশে-বিদেশে নতুন বাজার খুঁজতে হবে।

বিশেষ অতিথি ছিলেন দ্য রিপাবলিক অব ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত মিসেস রিনা-পি-সোমারনো, এশিয়ান আরব চেম্বারের সভাপতি প্রিন্সেস ফে জাহান আরা, মালয়েশিয়ান ওয়ার্ল্ড চেম্বার অব কমার্সের ভিশন ও ডেভেলপমেন্টের প্রধান ড. দাতিন মালিগা সুব্রা মানিয়াম, ইন্ডিয়ান ইকোনোকিম ট্রেড অর্গানাইজেশনের (আইইটিও) প্রেসিডেন্ট ড. আসিফ ইকবাল।

দ্য চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, এ মেলা উইম্যান চেম্বারের জন্য মাইলফলক। মহাত্মা গান্ধী বলেছিলেন-চট্টগ্রাম সর্বাগ্রে। চট্টগ্রাম দেশের প্রবেশদ্বার।

মন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানির দিকে যাচ্ছি। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। বে টার্মিনালের ভূমি অধিগ্রহণ হয়েছে। টার্মিনালের জন্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি টাইম ফ্রেম দিতে হবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ১৩ টনের বাধ্যবাধকতা অপসারণ না করলে দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের (জেলা ৩১৫/বি-৪)গভর্নর কামরুন মালেক বলেন, মনোয়ারা হাকিম আলী ডায়নামিক লিডার। রক্ষণশীল চট্টগ্রামের নারীদের উদ্যোক্তা বানিয়েছেন।

উইম্যান চেম্বারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য দেন উইম্যান চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি ডা. মুনাল মাহবুব।

বক্তব্য দেন ফ্যাশন ডিজাইনার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি মানতাশা আহমেদ, পিআরআইএসএম প্রকল্পের টিম লিডার আলী সাবেত প্রমুখ। মেলায় স্পন্সর হিসেবে রয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ, সাইফ পাওয়ারটেক ইত্যাদি প্রতিষ্ঠান।