মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং ২৮শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নবীনগরে যেকোন সময় ঘটতে পারে ভয়াবহ দূর্ঘটনা

news-image

সঞ্জয় শীল, নবীনগর : ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে দিন দিন ছত্রাকের মতো বাড়ছে অনুমতিবিহীন বোতলজাত গ্যাস সিলিন্ডার বক্রিতোর দোকানের সংখ্যা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ও নিয়মাবলি না মেনেই গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করছে নবীনগরের মুদির দোকান থেকে শুরু করে ইলেক্ট্রিক দোকান, ফটোষ্ট্যাট দোকান, চালের আড়ৎ, জুতার দোকান, কাপড়ের দোকান, পানের দোকান, মোবাইলের দোকানে।

কোন রকমের অগ্নি নির্বাপক ব্যবস্থা ছাড়াই বিক্রি হচ্ছে গ্যাসের বোতল। প্রতিটি দোকানই যেন এক একটি বোমায় পরিণত হচ্ছে। তাছাড়া নবীনগরে যে সকল বোতলজাত গ্যাস বিক্রেতা এজেন্ট আছেন তারাও মানছেন না আইন। নেই কোন অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা এড়াতে অগ্নি নিরোধক ও প্রতিকারের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা। গুদামে কিংবা শো-রুমে ডিসপ্লে করা কয়েক হাজার বোতলজাত গ্যাসের সিলিন্ডারের বিপরিতে অগ্নি নিরোধক স্প্রে রয়েছে মাত্র কয়েকটিতে।

আবার কোন কোন দোকান ও গুদামে গিয়ে দেখা গেছে সেখানে একটিও অগ্নিনিরোধক স্প্রে নেই। নবীনগরে বেশ কয়েকটি গ্যাস সিলিন্ডার গুদাম আছে যেগুলোতে দূর্ঘটনা ঘটলে পুড়ে খাক না হওয়া পর্যন্ত অসহায় ভাবে দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া উপায় নেই। তাছাড়া নবীনগর পৌর সি.এন.জি স্টেশনে গিয়ে দেখা গেছে বেশির ভাগ সি.এন.জি চালিত গাড়ি পাম্পের সি.এন.জি গ্যাসের বদলে ব্যবহার করা হচ্ছে রান্নার কাজে ব্যবহারযোগ্য সিলিন্ডার গ্যাসের বোতল। নবীনগর থেকে শিবপুরগামী সি.এন.জি চালিত গাড়িতে বসা একজন যাত্রী বলেন, গাড়ি দিয়ে প্রায় আসা – যাওয়া করি এই রুটে, সি.এন.জি গ্যাসের বদলে যখন রান্নার কাজে ব্যবহৃত গ্যাসের সিলিন্ডার দেখি তখন ভয়ে বুক কাঁপে, মনে হয় এই বুঝি দূর্ঘটনা ঘটলো। আবাসিক এলাকার অলি-গলিতে রাস্তার পাশে ডিসপ্লে করে বিক্রি করে চলেছে স্থানিয় দোকানিরা। নবীনগর শহরের ব্যস্ততম সড়ক গুলোর পাশে পথচারি চলাচলকারি রাস্তা বন্ধ করে ডিসপ্লে রাখছে বোতলজাত গ্যাস সিলিন্ডারের বোতল।

পথচারি মো. কয়েস আহমেদ জানান, গ্যাসের বোতল দিয়ে দোকানিরা এখন পথচারি চলাচলকারি রাস্তা বন্ধ করে রাখে এতে আমাদের মতো পথচারিদের পোহাতে হচ্ছে চরম দূভোর্গ। যে কোন সময় একটু ধাক্কা লাগলে ছিটকে পড়ে ঘটতে পারে দূর্ঘটনা। স্থানিয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সামনে প্রকাশ্যে বিক্রি করে চলেছে নবীনগরের বিভিন্ন স্থানে। অনুমতিবিহীন এই সকল দোকানিদের বিরুদ্ধে অনেকে প্রতিবাদ করলেও প্রতিকার পাচ্ছে না কেউ। গত ০৯/১০/১৯ তারিখে নবীনগর উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামের চায়ের দোকানে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে চাচা-ভাজিজা আগুনে পুড়ে মারা যায়। প্রায় নবীনগরের বিভিন্ন স্থানে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ সহ ছোট-খাট নিত্য দূর্ঘটনা ঘটে চলেছে।

অনেকের মতে গ্যাসের সিলিন্ডার পরিবহন ও বিপননে বোতলজাত গ্যাস সিলিন্ডার এজেন্ট ও ব্যবসায়ীদের গাফিলতির কারনে এসব দূর্ঘটনা ঘটে চলেছে। পরিবহন ও বিপনণ করার সময় অসর্তকতার কারনে গ্যাসের বোতলে দেখা দিচ্ছে লিকেজ। নবীনগর পৌরসভাস্থ মাঝিকাড়া গ্রামের চা দোকানি আক্তার খাঁ জানান, আমরা সব সময় ভয়ে থাহি, গ্যাসের বোতলে প্রায় এহন লিক থাকে । দ্রুত কর্তৃপক্ষ এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন না করলে নবীনগরে যে কোন সময় ঘটে যেতে পারে ভয়াবহ দূর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটতে অনকেরে।

 

এ জাতীয় আরও খবর

সরাইলে ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দে কর্মসৃজন কর্মসূচির উদ্বোধন

সরকার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে : মো. মামুনুর রশিদ ডিসি

আরও ১১ টিভি সম্প্রচারের অপেক্ষায়

হোপ হাসপাতালের ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠন

অবশেষে রাজনের কারামুক্তি

নিজে নিজে পড়তে হবে, প্রাইভেট-কোচিং নয় : জাফর ইকবাল

বাঞ্ছারামপুরে পরকীয়ার বলি স্বামীকে হত্যা

‘বিএনপি-জামাত ক্ষমতার সময় বাংলাদেশ ছিল মিসকিনের দেশ’

বুলবুল তাণ্ডবে ট্রলারডুবি, নিখোঁজ ৯ জেলের লাশ উদ্ধার

তুরিন আফরোজ বললেন, আমি মুখ খুললে ট্রাইব্যুনালের অনেক কিছুই প্রশ্নবিদ্ধ হবে

তুরিনের বিরুদ্ধে মামলার ইঙ্গিত

ফেনীতে ফাঁসির মঞ্চ না থাকায় কুমিল্লায় যাচ্ছে নুসরাতের খুনিরা