মঙ্গলবার, ১৯শে জুন, ২০১৮ ইং ৫ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আদালতে খালেদা জিয়া ভোটের অযোগ্য হলে সরকারের কিছু করার নেই

news-image

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : আদালতের রায়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নির্বাচন করার অযোগ্য বিবেচিত হলে সরকারের কিছু করার নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার রায়ের যে সার্টিফায়েড কপি নিয়ে এতোদিন তারা সন্দেহ করেছেন, সে কপি কাল পেয়ে গেছেন। তারপরেও নতুন নতুন কথা বলছেন তারা। রায়ের একটি অংশে আছে, খালেদা জিয়ার অপরাধ রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধের সামিল। এ অপরাধ যিনি বা যারা করেন, আদালতের আদেশ অনুযায়ী তাদের ভাগ্য নির্ধারিত। আদালতের সিদ্ধান্তে বিএনপি চেয়ারপারসন যদি নির্বাচনে অংশগ্রহণের যোগ্যতা হারিয়ে ফেলেন, সে অবস্থায় তাকে নির্বাচনে আনার কোনো সুযোগ সরকারের নেই।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার নিমতলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বিআরটিএ’র ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় ট্রাফিক আইন না মানায় ছয়টি যানবাহনকে ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

আদালত-৭ এর এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আব্দুর রহিম সুজন এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

এসময় মন্ত্রী আরও বলেন, আদালতের আদেশেই সব কিছু হবে। তারা এখন উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারেন, আপিল করার পর আদালত যদি খালেদা জিয়াকে নির্বাচন করার অনুমতি না দেন, তাহলে আওয়ামী লীগের কী করার আছে? সরকারের কী করার আছে? আজ যেখানে রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধের দায়, সেখানে যদি নির্বাচন করার যোগ্যতা তিনি অর্জন না করেন তাহলে সেখানে সরকারের কিছু তো করার নেই। বিষয়টি আদালতের, এখানে সরকারের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। সোমবার প্রেস কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে তাদের (বিএনপি) অপরাধী চরিত্র উন্মোচিত হওয়ায় বিএনপির গাত্রদাহ শুরু হয়ে গেছে। তারা দুর্নীতিতে পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, এখন তারা আবার যদি ক্ষমতায় আসতে পারেন, গঠনতন্ত্র থেকে সাত ধারা তুলে দিয়ে নিজেদের দুর্নীতি প্রবণ মুখোশ উন্মোচন করবেন।

Print Friendly, PDF & Email