বুধবার, ২৩শে মে, ২০১৮ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

অবশেষে  প্রতারনার অভিযোগে ভূয়া আইনজীবি ও সহযোগী গ্রেফতার

news-image
তৌহিদুর রহমান নিটল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এডভোকেট ও সহকারী আইনজীবি হিসেবে ভূয়া পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোন করে বিভিন্ন ব্যক্তিদের কাছ থেকে বিকাশ এর মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়া অভিযোগে  প্রতাকর চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো নুর আলম ময়িা (৩২), মোঃ আল আমনি ওরফে শপিন (৩৫) ও মোঃ রাশদে মুহুরী (৩৮)। বৃহস্পতিবার রাতেবিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশ জানায়, প্রতারকগন নিজেদেরকে এডভোকেট ও সহকারী আইনজীবি হিসেবে ভূয়া পরিচয় দিয়ে সদর উপজেলার ছোটহরনের বাসিন্দা মোঃ হুমায়ুন কবিরকে মোবাইলে ফোন করে জানায় যে, তার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন, মানব পাচারকারী ও প্রতারনা পূর্বক টাকা আত্মসাধের  ৩টি মামলা হাই কোর্টে রয়েছে। এ সময় এসব মামলা গুলো নিষ্পত্তি খরচ বাবদ ২লক্ষ টাকা দিতে বলে এবং মামলা ৩টির নকল বাবদ ২হাজার টাকা দাবী করে। পরে হুমায়ন কবির প্রতারকদের বিকাশ নম্বরে ১ হাজার ৫০০ টাকা প্রেরণ করে। পরবর্তীতে প্রতারনার বিষয়টি আচ করতে পেরে বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করে হুমায়ুন। পরে সদর থানার পুলিশ অনুসন্ধান চালিয়ে প্রতারক চক্রকে চিহ্নিত করে তাদের অবস্থান সনাক্ত করে। এরপর বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে শহরের ভাদুঘর, কাউতলী ও খালপাড় এলাকা থেকে  নুর আলম মিয়া (৩২), মোঃ আল আমনি প্র: শপিন (৩৫),মোঃ রাশেদ মুহুরী (৩৮)কে গ্রেফতার করে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নবীর হোসেন জানান, গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে আত্মসাৎকৃত  টাকাসহ তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। আসামীরা বিভিন্ন সময়ে নিজেদেরকে বিজ্ঞ আদালতের দায়িত্বশীল ব্যক্তি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তিদেরকে মিথ্যা মামলা এবং ভূয়া ওয়ারেন্ট এর কাগজপত্র তৈরি করে হয়রানী করাসহ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করত। এ ব্যাপারে সদর থানায় মামলা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email